Advertisement

হারিয়ে গিয়েছেন স্মৃতির পাতায়, প্রেমের উপাখ্যানে ভারতীয় ক্রিকেটার-বলিউড মোহিনী রূপকথা

রাজকুমার মণ্ডল : প্রেমের উপাখ্যানে  (Love Stories ) ক্রিকেটার ও বলিউড মোহিনী রূপকথার সাগরে বলিউড দিবস। বলিউডের সঙ্গে ক্রিকেটারদের সখ্য নতুন নয়। মনসুর আলি খান পাতৌদি-শর্মিলা ঠাকুর জুটির প্রেমকাহিনী থেকে শুরু করে মহম্মদ আজহারউদ্দিন-সংগীতা বিজলানির পর বিরাট কোহলি-অনুশ্কা শর্মা। তালিকায় রয়েছে আরোও অনেক ক্রিকেট তারকারা। বলিউড-ক্রিকেট প্রেম উপাখ্যানে জুটি জহির-সাগরিকার কথা কারুর অজানা নয়। যুবরাজ সিং ও অভিনেত্রী হেজল কিচের দীর্ঘদিনের চুটিয়ে প্রেম (Love Stories ) মনে রাখার মতো। অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়ার প্রেমে হাবুডুবু অভিনেত্রী এলি আব্রাম। ক্রিকেট ও বলি অভিনেত্রী প্রেমকাহিনী স্মৃতীর সরণী বেয়ে মাথাচাড়া দেয় নতুন উপাখ্যান রচনায়।

শর্মিলা ঠাকুর-টাইগার পতৌদি : প্রথম দেখাতেই টাইগারের প্রেমে পাগল শর্মিলা। সত্তরের দশকের সেরা দম্পতি জুটি। সবচেয়ে গ্লামারাস বলিউড অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুর ও নবাব পতৌদির প্রেম (Love Stories )  চিরস্মরনীয় ।ভারতীয় ক্রিকেটের টেস্টের সবচেয়ে সফল তরুণ অধিনায়ক মনসুর আলি খান দীর্ঘ প্রেমের পর বিয়ে করেছিলেন শর্মিলাকে।

অঞ্জু মহেন্দ্র-গ্যারি সোবার্স : ষাটের দশকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল যখন ভারতে আসে তখন বলিউড অভিনেত্রী অঞ্জু মহেন্দ্রর সঙ্গে দেখা হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি ক্রিকেটার গ্যারি সোবার্সের। সেই থেকে দুজনের মধ্যে প্রেমের (Love Stories ) সম্পর্কে গভীরতা রূপ নেয়। অঞ্জু মহেন্দ্রু ১৯৪৬ সালের ১১ই জানুয়ারি তারিখে তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের বোম্বে প্রেসিডেন্সির বোম্বে-এ (বর্তমানে মুম্বই) জন্মগ্রহণ করেছিলেন। মহেন্দ্রু বেশ কয়েক দিন যাবৎ ক্রিকেট খেলোয়াড় গারফিল্ড সোবার্সের সাথে প্রেমবন্ধনে আবদ্ধ ছিলেন।

নীনা গুপ্ত-ভিভ রিচার্ডস : নীনা গুপ্ত ও ভিভ রিচার্ডসের (Love Stories )  প্রেম খুবই বিতর্কিত ছিল। দুজনের কখনো বিয়ে হয়নি। তবে তাদের লাভ চাইল্ড মাসাবা ইতিমধ্যে ফ্যাশন ডিজাইনার হিসাবে জনপ্রিয় হয়েছেন। আশির দশকে ক্যরিবিয়ান ক্রিকেট তারকা ভিভ রিচার্ডসের সঙ্গে গভীর প্রেম সম্পর্ক ছিল নীনার। তাঁদের বহুচর্চিত রোম্যান্স (Love Stories ) সেই সময় সংবাদ শিরোনামে দেখা যেত হামেশাই। ১৯৮৯ সালে তাঁদের কন্যা মাসাবার জন্ম হয়। তবে কোনওদিনই নীনা গুপ্তাকে বিয়ে করেননি ভিভ রিচার্স। স্ত্রী মারিয়মকে ডিভোর্স দিতে রাজি হননি ভিভ। মাসাবা জন্মের পরও তাঁরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন একে অপরকে বিয়ে না করার।

আজহারউদ্দিন-সঙ্গীতা বিজলানি : বলিউডে সাফল্যের দিকে ক্রমেই এগোনো সঙ্গীতা বিজলানির সঙ্গে ১৯৯৬ সালে পরিচয় হয় ক্রিকেটার অধিনায়ক আজহারউদ্দিনের। খুব অল্প সময়ের মধ্যে তারা একে অপরের প্রেমে (Love Stories ) পড়েন। মডেল সংগীতা বিজলানি বলিউড চলচ্চিত্র অভিনেত্রীও ছিলেন। তিনি মিস ইন্ডিয়া-১৯৮০ বিজয়ী। বিজলানী আদিত্য পাঞ্চলি’র কাতিল(১৯৮৮) চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তার অভিনয় জীবন শুরু করেন। বিজলানী সাবেক ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মহম্মদ আজহারউদ্দীনকে বিয়ে করেন এবং ২০১০ সালে বিচ্ছেদও হয়।

রীনা রায়-মহসিন খান : পাকিস্তানের ক্রিকেটার মহসিন খানকে বিয়ে করেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী রীনা রায়। রীনা বিয়ের পরে অভিনয় ছেড়ে দেন। কিন্তু এই বিয়ে বেশিদিন টেকেনি। সাল ১৯৭২-১৯৮৫, বলিউডে ছবির দুনিয়ায় অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী ছিলেন রীনা রায়। কেরিয়ারের শীর্ষে থাকাকালীনই একাধিক বিতর্কে নাম জড়িয়েছে রীনার। একসময় শত্রুঘ্ন সিনহার সঙ্গে রীনার প্রেম (Love Stories ) চর্চায় উঠে আসে। আবার কেরিয়ারের শীর্ষে থাকাকালীনই পাকিস্তানি ক্রিকেটার মোহসিন খানকে বিয়ে করে বসেন রীনা

‌আরো পড়ুন ‘সবথেকে সুন্দর স্বত্বা’,জন্মদিনে টাইগারকে শুভেচ্ছা জানালেন রিউমারড গার্লফ্রেন্ড দিশা পাটানি

বলিউড-ক্রিকেট প্রেম উপাখ্যানে নতুন জুটি জহির-সাগরিকা। ভারতীয় দলের সাবেক পেসার জহির খান ও অভিনেত্রী সাগরিকা ঘাটগে। তাঁদের দীর্ঘদিনের প্রেম এবার বিয়েতে রূপ পেয়েছে। শাহরুখ খানের বিখ্যাত ‘চাক দে ইন্ডিয়া’ ছবিটির প্রীতি সাবারওয়াল চরিত্রে মেয়েটির আসল নাম সাগরিকা ঘাটগে। জহির খানের সঙ্গে তাঁর মন নেওয়া-দেওয়ার বেশ কিছুদিন আগে থেকেই। বহুচর্চিত বিরাট কোহলি-অনুশকা শর্মা দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের সম্পর্কের (Love Stories )  কথা চেপে রাখলেও শেষমেষ ২০১৪ সালে নিজেদের সম্পর্কের বিষয়ে মিডিয়ার কাছে খোলাখুলি ঘোষণা করেন বিরাট ও অনুশকা। যুবরাজ সিং ও অভিনেত্রী দীর্ঘদিন চুটিয়ে প্রেম করেছেন। বলিউডের অভিনেত্রী কিম শর্মা, দীপিকা পাড়ুকোনের পর এবার নেহা ধুপিয়ার সঙ্গে ক্রিকেটার যুবরাজ সিংয়ের প্রেমের খবর চাউর হয়েছে। অভিনেত্রী কিম শর্মার সঙ্গে দীর্ঘদিন প্রেম করার পর সম্পর্কের ইতি টানেন যুবরাজ। কিমের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা মেনে নিতে পারেননি যুবরাজের মা। মূলত মায়ের অমতের কারণেই কিমের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছিলেন যুবরাজ। হরভজন সিং-গীতা বসরা  বেশ কিছুদিন ‘শুধুমাত্র ভাল বন্ধু’ থাকার পর শেষমেষ নিজেদের প্রেমের (Love Stories ) কথা স্বীকার করে নিয়ে ২০১৫ সালে ২৯ অক্টোবর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন গীতা-হরভজন। ২০১৫ সালে বলিউড নায়িকা গীতার সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা পড়েছিলেন ভাজ্জি।নের কোন বিকল্প নেই।



Follow us on


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement
Back to top button
Advertisement
Advertisement