ভাগ্যের ফেরে ৮৯ বছরের বৃদ্ধ পিৎজা ডেলিভারি বয়! পেলেন উদারতার পুরস্কার

আমেরিকা নিবাসী ডারলিন নেইভ,বয়স ৮৯ বছর পেশায় একজন পিৎজা ডেলিভারি বয়। হ‍্যা ঠিকই শুনেছেন কারন এই বয়সেও তিনি অক্লান্ত পরিশ্রম করে বাড়ি বাড়ি পিৎজা ডেলিভারি দিয়ে সংসার চালান। তিনি প্রতিদিন ৫-৬ সময়ের ব্যবধানে পিৎজা ডেলিভারি করেন। এক পিৎজা গ্রাহক জানান, ওই পরিশ্রমী বৃদ্ধ জখনই পিৎজা দিতে আসতেন, মুখে লেগে থাকতো একটি অমলিন হাসি। সাথে থাকতো সেই দিন তৈরি করে দেওয়ার মতো রসদ।  পেটের দায় বড় দায়, একথা শুনে থাকেও বাস্তবের মাটিতে তার দর্শন ও হয়ে গেল। 

সেদিন ও ছিল আর পাঁচটা দিনের মতোই। কিন্তু পিৎজা দিতে গিয়ে যে তিনি ভাগ্যর ফেরে পুরস্কারে ভূষিত হতে চলেছেন সেটা বোধহয় ঘুণাক্ষরে ও টের পাননি তিনি। আর হঠাৎ একদিন ডেলিভারি দিতে গিয়ে পরিচয় হয় ৩২বছর বয়সী গ্লাডি ভেলজ নামের এক মহিলার সাথে। মহিলাটি এত বয়স্ক মানুষের পিৎজা ডেলিভারি করা দেখে খানিকটা অবাক হন এবং গল্প জমান ঐ ডারলিনের সাথে। গল্প করতে করতেই তিনি ভিডিও করেন ঐ বৃদ্ধের।

এরপর ঐ ভিডিওটি মহিলা শেয়ার করেন টিকটকে। কিন্তু এখানেই শেষ নয় পরপর পিৎজা ডেলিভারির জন্য ঐ বৃদ্ধকেই ডাকেন ঐ মহিলা।আর প্রত‍্যেকবার একটি করে ভিডিও বানিয়ে স‍্যোশ‍্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে প্রায় ১২ হাজার ডলার সংগ্রহ করেন ঐ মহিলা যার মূল্য ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৯লক্ষ টাকা। তার এই কাহিনী সোশ্যাল মিডিয়ার আদলে পড়ে এক বিশাল সমর্থন পায়। সাথে ইন্টারনেট সম্প্রদায় লোকটির জন্য অনুদানের অ্যাকাঊন্ট খুললে সেখানে অনুদান বাবদ ২০০০ ডলার সংগ্রহ হয়।  

এতেই শেষ নয় সংগ্রীহিত টাকা পরদিন একটি পিৎজা বক্সে ভরে ঐ বৃদ্ধের বাড়ি পাঠিয়ে দেন ঐ ভদ্রমহিলা সাথে পাঠান একটি মেসেজ। এত টাকা পেয়ে বৃদ্ধ আনন্দে কেঁদে ফেলেন তিনি । তার এক হাসি যেন সকলের কাছে হার না মানার বার্তা দেয়। লড়াইয়ে টিকে থাকতে, বাস্তবের মাটিতে দাঁড়াতে এক নতুন রূপে প্রাণস্পন্দনের সংজ্ঞা দিয়ে যায়।  

আরও পড়ুন ওয়ার্নে সর্বশ্রেষ্ঠ স্পিনার নন, শেন সম্পর্কে গাভাসকারের তিরস্কার

আরও পড়ুন Sa Re Ga Ma Pa Winner 2022: আবারও বাংলাই প্রথম, সকলে পিছনে ফেলে সারেগামাপার ট্রফি নীলাঞ্জনার হাতেই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button