fbpx

Mithai: জনপ্রিয়তায় নেই কমতি! মিঠাইয়ের মজার কীর্তি দেখেই সুস্থ হয়েছেন এক রোগীও, স্বীকার দাদাইয়ের

শুধুই নয় বিনোদন, মিঠাই’এর কাজ মুমূর্ষু রোগীকে সুস্থ করে তোলা! অভিনেতার মন্তব্যে উঠে এল এমনই কিছু তথ্য

মন্টি শীল, কলকাতা: সম্প্রতি বাংলার টপার হিসেবে বাংলা ধারাবাহিকের ইতিহাসে এক নতুন কীর্তি স্থাপন করেছে জি বাংলা ( Zee Bangla ) সম্প্রচারিত ধারাবাহিক মিঠাই ( Mithai )। গত সপ্তাহে প্রকাশিত টিআরপি তালিকা অনুযায়ী অভিনেত্রী সৌমিতৃষা কুন্ডু ( Soumitrisha Kundu ) এবং অভিনেতা অদৃত রায় ( Adrit Roy ) অভিনীত এই ধারাবাহিক মিঠাই মোট ৫৬ সপ্তাহ বাংলার টপার হিসেবে তালিকায় শীর্ষ স্থান দখল করে রেখেছে। অতএব বুঝতেই পারছেন দর্শকদের মাঝে কতটা জনপ্রিয় এই ধারাবাহিক। তবে মিঠাই’এর ( Mithai )জনপ্রিয়তা শুধুমাত্র টেলিভিশনের পর্দা পর্যন্ত সীমাবদ্ধ নেই, সম্প্রতি তা এসে পৌঁছিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে।

এদিন যার এক ছোট্ট নিদর্শন পাওয়া গেল। ইদানিং এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছিলেন মিঠাই ( Mithai ) ধারাবাহিকের দাদু ওরফে জনপ্রিয় টলিউড অভিনেতা বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী এবং দিদিমা ওরফে অভিনেত্রী স্বাগতা বসু। সেখানেই তাঁরা মিঠাই ধারাবাহিকের কিছু গোপন রহস্য এবং কিছু মনমুগ্ধকর কাহিনী প্রকাশ করলেন। অভিনেতা বিশ্বজিৎ চক্রবর্তীর করা মন্তব্য অনুযায়ী, ‘তাঁরা সর্বদাই অনস্ক্রিন কেমিস্ট্রির সঙ্গে অফস্ক্রিন কেমিস্ট্রির সামঞ্জস্য রাখার চেষ্টা করেন এবং তা করে উঠতে তাঁরা সফল হয়েছেন।’

27c62

তবে অভিনেতা এদিন বলেন, ‘ধারাবাহিকে গল্পের ধারা অনুযায়ী এক চরিত্রের সঙ্গে অপর চরিত্রে বাদানুবাদ লেগে থাকলেও, তাঁদের অফস্ক্রিন সম্পর্ক ভীষণ বন্ধুত্বপূর্ণ। তাঁর শ্যুটিং শেষ হওয়া মাত্রই সকলে মিলে সোজা রওনা দেন ক্যাফের উদ্দেশ্যে। যেখানে প্রায় সকলেই হইহুল্লোরের সঙ্গে তাঁদের দিন উজ্জাপন করেন। তবে ক্যাফের সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা শহর কলকাতার বিভিন্ন অভিজাত ক্লাবেও যান।’ কিন্তু এতো গেল বিনোদন মূলক তথ্য। কিন্তু আপনি কি জানেন এই মিঠাই ধারাবাহিক দেখে সুস্থ হচ্ছেন কিছু মুমূর্ষু রোগী। হ্যাঁ, ঠিকই শুনেছেন। এদিন অভিনেতা বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী’র মন্তব্যে এমনি মন্তব্য সকলের সামনে উঠে এল।

অভিনেতার বক্তব্য অনুযায়ী, ‘তাঁর এক নিকট বন্ধু আছেন যিনি ভাষাগত দিক থেকে একজন হিন্দিভাষি, কিন্তু সে প্রতিনিয়ত মিঠাই ধারাবাহিক দেখতেন। এমনকী অভিনেতার সঙ্গে ধারাবাহিক প্রসঙ্গে দীর্ঘ আলোচনা করতেন। কিন্তু বেশ কিছুদিন তাঁর কোন রূপ সংবাদ আসে না। এরপর অভিনতা নিজেই তাঁর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে পারেন তিনি এক দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত এবং সুদূর মুম্বাইতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এরপর তিনি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার পর জানতে পারেন, তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন এবং সুস্থ আছেন। এমনকী সে চিকিৎসাধীন থাকাকালীন হাসপাতালে বসে মিঠাই ধারাবাহিক দেখছেন।’ যা শোনার পর স্বাভাবিক ভাবেই মুগ্ধ হয়েছেন মিঠাই অনুরাগীরা। এমনকী অভিনেতা বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী বলেন, ‘একজন শিল্পী হিসেবে তাঁদের জীবনের এক বড় প্রাপ্তি।’

google-news-icon

লেটেস্ট খবর