fbpx

Ridhima Ghosh: “ছোটবেলার পুজো আজ পুরোটাই অতীত”, পুজোর আনন্দ-দুঃখ নিয়ে মুখ খুললেন রিদ্ধিমা

একি বললেন অভিনেত্রী রিদ্ধিমা কলকাতার পুজো সম্পর্কে? জেনে নিন বিশদে

জয়ীতা সাহা, কলকাতা: দুর্গা পুজো যে শুধু পুজো নয় এ হল বাঙালির আবেগ। পূর্ব থেকে পশ্চিম, উত্তর থেকে দক্ষিণ সকল ভারতবাসী সহ বিদেশীরাও মেতে ওঠেন পুজোর এই পাঁচ দিনের আনন্দে। বিভিন্ন জায়গায় পুজো হলেও দুর্গা পুজোর মূল প্রাণকেন্দ্র কিন্তু কলকাতা। তবে পুজো পাঁচদিন হলেও ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি সহবেশ কিছু কাজের দুনিয়ার মানুষের এই আনন্দ উপভোগ করার জন্য বরাদ্দ থাকে মাত্র তিন দিন। দিল্লি হোক বা মধ্যপ্রদেশ, এলাহাবাদ হোক বা অন্ধ্রপ্রদেশ কলকাতার পুজোর আনন্দের সঙ্গে টেক্কা দিতে পারেনা কেউই। এবার এমন কথাই সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে প্রকাশ্যে জানিয়েছেন অভিনেত্রী ঋদ্ধিমা ঘোষ।

সালটা ২০০৭ রাতপরীর রূপকথার মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে আত্মপ্রকাশ ঘটে তাঁর। এরপর ২০০৯ সালে স্টার জলসার এক সময়ের জনপ্রিয় সিরিয়াল বউ কথা কউ দিয়ে টেলিভিশন জগতে অভিষেক ঘটে অভিনেত্রী ঋদ্ধিমার। ছোট বেলার পুজোর বেশিরভাগটাই কেটেছে এলাহাবাদে মামাবাড়িতে। মামাবাড়ির দুর্গা পুজোতে বেশ আনন্দ হলেও কলকাতার সঙ্গে তার কোনও তুলনা হয় না, বলেন অভিনেত্রী ঋদ্ধিমা। ২০১৭ সালে অভিনেতা গৌরব চক্রবর্তী-র সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন অভিনেত্রী। জনপ্রিয় অভিনেতা সব্যসাচী চক্রবর্তী-র পুত্রবধূ তিনি। ব্যোমকেশ সহ বিভিন্ন ধারাবাহিক, চলচ্চিত্রে অভিনয় করে মন কেড়েছেন দর্শকদের।img 20220911 143923সম্প্রতি একটি সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানিয়েছেন, ” এলাহাবাদে বিভিন্ন মন্ডপে পুজো হত, কিন্তু কলকাতার মত এমন পাড়ায় পাড়ায় এত পুজো হত না।” বর্তমানে অভিনেত্রী কাজের ফাঁকে কলকাতার পুজো কেমন উপভোগ করেন, এ প্রসঙ্গ উঠতেই তিনি বলেন, ” পুজোর সময় সপ্তমীর কাজের শেষে তিন দিনের ছুটি বন্ধুদের বাড়িতে আড্ডায় কেটে যায়। আর কাজের সূত্রে বেশিরভাগ বড় পুজো গুলিই আগে দেখা হয়ে যায়, তাই বন্ধুদের সঙ্গে আলাদা করে পুজোতে ঘোরার প্ল্যান করা হয়ে ওঠেনা। তবে এ বছর পুজোতে গৌরবের মামা -মামি আসছেন দিল্লি থেকে। তাই তাঁদের সঙ্গে পুজোয় আনন্দ করার চিন্তাভাবনা রয়েছে।”img 20220911 143442ছোট বেলার পুজোর স্মৃতির প্রসঙ্গ উঠতেই অভিনেত্রীর বক্তব্য, ” এলাহাবাদ বাদে কলকাতায় যে বছর থাকতাম বন্ধুদের সঙ্গে মন্ডপে ক্যাপ বন্দুক ফাঁটিয়ে পুজো উদযাপন ছিল বাঁধাধরা। তবে এখন সবটাই স্মৃতি।” ছোট বেলা থেকেই অভিনেত্রী বড্ড দুরন্ত ছিলেন। তাঁর দস্যিপনার প্রমাণ দিতে তিনি বলেন,” ছোট বেলায় পাড়ার সব ছেলেরা ছিল আমার বন্ধু। ওদের সঙ্গে কি আর প্রেম করব আমিই ওদের সেটিং করিয়ে দিতাম। আর পাশের পাড়ার ছেলেদের সঙ্গে যেতাম ক্রিকেট খেলতে। তাই আর প্রেম ব্যাপারটা গড়ে ওঠেনি ওদের সঙ্গে।” ছোটবেলার কিছু ফিরে পাওয়ার কথায় অভিনেত্রী এক প্রাণভরা কন্ঠস্বরে বলে ওঠেন,” ছোটবেলায় পুজো মানেই মায়ের কাছ থেকে অন্তত্য দশটি জামা পাওয়া। কিছু ফিরে যদি পেতে চাই তাহলে মা-কে ফিরে পেতে চাই। ”

 

google-news-icon

লেটেস্ট খবর