fbpx

‘আমাদেরকে পাল্টাতে হবে…’, পরপর তিনটি ছবি ফ্লপ করায় অকপট স্বীকারোক্তি খিলাড়ি কুমারের

রাৎসাসান ছবির হিন্দি রিমেক 'কাঠ পুতলি'তে অভিনয় করেছেন তিনি। সম্প্রতি মুক্তি পায় এই ছবির ট্রেলার।

অনীশ দে, কলকাতা: বলিউড এই মুহূর্তে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ একটি ইন্ডাস্ট্রিতে পরিনত হচ্ছে। অন্যদিকে দক্ষিণ ভারতের ছোট বাজেটে তৈরি ছবিও বক্স অফিসে সুনামি তুলছে। দর্শক কেমন ছবি দেখতে চায় সেই নিয়ে বিভ্রান্ত প্রযোজকরা। আমির খানের মতো মেগাস্টারের ছবি মুখ থুবড়ে পড়েছে বলিউডে। অন্যদিকে হিট মেশিন খিলাড়ি কুমারের (Akshay Kumar) সময়ও ভালো চলছে না। এই বছর তাঁর মোট তিনটি ছবি মুক্তি পায়, বচ্চন পান্ডে, সম্রাট পৃথ্বীরাজ এবং রক্ষা বন্ধন। তিনটি ছবিই বক্স অফিসে লক্ষ্মীলাভ করতে পারেনি। অক্ষয়ের (Akshay Kumar) উপরে আগেও অভিযোগের আঙুল তোলা হয়েছে যে তিনি খুব তাড়াতাড়ি ছবি বানান বলে গুণগত মান পরে যাচ্ছে তাঁর কাজের। সম্প্রতি নিজের (Akshay Kumar) আসন্ন ছবির ঘোষণা সারলেন অক্ষয়।

akshay 2

রাৎসাসান ছবির হিন্দি রিমেক কাঠ পুতলিতে (Cuttputli) অভিনয় করেছেন তিনি। সম্প্রতি মুক্তি পায় এই ছবির ট্রেলার। পাহাড়ের কোলে এক নৃশংসতার সাক্ষী চলেছেন সকলে। এই ছবির ট্রেলার লঞ্চে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে একের পর এক বিস্ফোরক কথা বললেন খিলাড়ি (Akshay Kumar)। পরপর তিনটি ছবি ফ্লপ হওয়ায় এই মুহূর্তে বেশ খারাপ সময় কাটছে অক্ষয়ের। সম্রাট পৃথ্বীরাজ মুক্তির সময় তাঁর আত্মবিশ্বাস নিয়ে একাধিক প্রশ্ন উঠলেও তিনি (Akshay Kumar) তাতে পাত্তা দেননি। কিন্তু এইবার তিনি নিজের মুখে স্বীকার করলেন তাদের ভুল হয়েছে। দর্শকদের জন্য আরও ভালো কাজ করার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন তিনি।

akshay 3

সারি দিয়ে একের পর এক ছবির ঘোষণা সেরেছেন তিনি। যাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ও মাই গড ২ (Oh My God 2) এবং রামসেতু। সাংবাদিক সম্মেলন চলাকালীন যখন অক্ষয়কে জিজ্ঞাসা করা হয় যে তাঁর পরের ছবি ও মাই গড ২ (Oh My God 2) অক্টোবরে মুক্তি পাবে কী না তখন তা তিনি খারিজ করে দেন। বিগত কিছু ছবি বক্স অফিসে একেবারেই ব্যবসা করতে পারেনি অভিনেতার। তার উপর ওটিটি-তে একাধিক ছবি মুক্তি পাওয়ায় অক্ষয়ের খ্যাতিতেও আঘাত এসেছে। অক্ষয় কি পারবে আবার নিজের পুরনো জায়গায় ফিরতে? সেটা আসন্ন সময়েই বোঝা যাবে।

akshay 4

অক্ষয়কে যখন জিজ্ঞাসা করা হয় যে, বিভিন্ন অভিনেতারা এখন ওটিটির সাহারা নিচ্ছেন নিজের অস্তিত্ব বজায় রাখার জন্য। এর কারণ কি? ওটিটিতে হিট বা ফ্লপের ব্যাপার না থাকতেই কি সবাই সেই দিকে ঝুঁকছে নাকি এই সবচেয়ে নিরাপদ তাই? এই প্রশ্নের জবাবে অক্ষয় বলেন, কিছুই নিরাপদ নয়। যদি ছবি ওটিটিতে আসে তবুও তার ট্রেলার টিজার ভালো না খারাপ সেই নইয়ে আলোচনা হয়। সিনেমা হলের মতো ওটিটিতে মুক্তি পাওয়া ছবিও ক্রিটিক, সাধারন মানুষেরা দেখেন। আপনি ভালো কাজ করলে মানুষ প্রশংসা করবে আর খারাপ কাজ করলে ছুড়ে ফেলে দেবে, এটাই নিয়ম। শেষমেশ অক্ষয় বলেন, অভিনেতাদের আরও বেশি খাটতে হবে এখন কারন সময় এবং দর্শকদের দৃষ্টিভঙ্গি এখন অনেকটা বদলেছে।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর