fbpx

Amader ei poth jodi na sesh hoy: উর্মির হাতেই সংসারের হাল! ট্যাক্সি চালিয়ে প্রতিবন্ধী সাত্যকির পাশে থাকবে সে, চোখে জল ভক্তদের

“এই পথ যদি না শেষ নয়” স্বর্ণযুগের “আইকনিক গান”। উত্তম-সুচিত্রার রোমান্টিক গান এযুগের বাংলা ধারাবাহিকের শিরোনাম। নামেই লুকিয়ে আছে ‘না থামার’ ইঙ্গিত। চরৈবেতি মন্ত্র নিয়ে এগিয়ে চলবে ধারাবাহিক। উর্মি সাত্যকির ডানায় ভর করে এগিয়ে চলছিল ধারাবাহিক।হঠাৎ করেই থমকে গিয়েছে সমস্তটা। মামনির প্রাণঘাতী হামলার চক্রান্তে সাত্যকি কোমায় চলে গিয়েছে আর উর্মি মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছে। চিকিৎসক জানিয়েছে সাত্যকি হয়তো আর কোনদিন স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে পারবে না। ‘পা’ অচল হয়ে যেতে পারে তাঁর। তবে যে ধারাবাহিকের প্রাণকেন্দ্র ছিল ‘হলুদ ট্যাক্সি আর তার ড্রাইভার’। তার কী হবে? এখানেই আসছে টুইস্ট। সম্প্রতি আসছে নতুন প্রোমো। সেখানেই রয়েছে নতুন ছন্দে জীবন লেখার ইঙ্গিত।

নতুন প্রোমোতে দেখা গিয়েছে, উর্মি সাত্যকি তাদের গাড়ি নিয়ে হাজির হয়েছে একটা স্কুলের সামনে। অনেক ছোট ছোট ফুলের মতো বাচ্চা তাদের ঘিরে ধরেছে। উর্মির জন্য রয়েছে একটি ‘সারপ্রাইজ’। এক ক্ষুদে স্কুলের বার্ষিক অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে বলছে, ‘আমি বড়ো হয়ে উর্মি আন্টির মতো ট্যাক্সি ড্রাইভার’ হয়ে সকলের কাছে পৌঁছে যেতে চাই।’ উপস্থিত দর্শকরা বেশ আশ্চর্য হয়েছে ছোট্ট মেয়েটির ইচ্ছার কথা শুনে। এখানে ছোটদের মধ্যেও অনুপ্রেরণা ছড়িয়ে দিতে পেরেছে উর্মি। ক্ষুদের কথা শুনে মঞ্চে ডাক পড়েছে উর্মির। এক কোটির চেক দিয়ে স্কুলের প্রিন্সিপাল জানিয়েছেন, উর্মির ক্যাবের সঙ্গে যুক্ত হতে চান।

এই পথ যদি না শেষ হয়

Posted by Swornendu Samaddaar on Friday, 19 August 2022

উর্মির নতুন পথ চলা শুরু হয়েছে। একজন দায়িত্ববান গাড়ি চালক সে। দুর্ঘটনায় প্রতিবন্ধী সাত্যকির পরিবারের হাল ধরেছে উর্মি। পাশে ক্রাচ নিয়ে দেখা গেছে সাত্যকিকে। নিজের অক্ষমতাকে স্বীকার করেই উর্মিকে উৎসাহ জুগিয়েছে সাত্যকি। সাত্যকি বলে, “তোমার নতুন পথ চলা শুরু।” উর্মি জানায়, “শুধু আমার না আমাদের নতুন পথ চলা শুরু।”

নতুন প্রোমোতে ফিরে এসেছে ধারাবাহিকের সূচনার সময়। সেসময় “মহিলারাও গাড়ি চালক হতে পারেন” এই বার্তাই পৌঁছে দিতে এসেছিল ধারাবাহিক। এক বছর পর সেই পুরানো ছন্দ ফিরে এসেছে ধারাবাহিকে। সকলেই অত্যন্ত বাহবা দিয়েছেন নতুন প্রোমোকে। উর্মি সমাজের অনুপ্রেরণা হয়ে উঠুক, এই শুভকামনায় ভরে গেছে প্রোমোর কমেন্ট বক্স। মহিলারা দায়িত্ববান ড্রাইভার হতে পারেন।তারা যদি সমাজের সমস্ত কাজ দায়িত্ব সহকারে পালন করতে পারে তবে গাড়ি চালানোয় বাধা কোথায়? এই নতুন প্রশ্ন সমাজের কাছে তুলে ধরতেই নতুন রূপে আসছে “এই পথ যদি না শেষ হয়”।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর