fbpx

Arpita Mukherjee: অল্প বয়সে বিয়ে করেই প্রথম বিচ্ছেদ! বেলঘড়িয়া থেকে কলকাতা কেমন ছিল অর্পিতার যাত্রাপথ

কখনও মেডিক্যাল রিপোর্ট ( Medical Report ) নিয়ে হাসপাতাল, কখনও ইডি ( ED ) অফিস। রাজ্যবাসীর চোখ এখন শুধু এদিক-ওদিক। নেপথ্যে মাত্র দুটি নাম পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অর্পিতা মুখোপাধ্যায় ( Partha Chatterjee and Arpita Mukherjee )। প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীর আপ্তসহায়কের ফ্ল্যাট থেকে কোটি টাকা উদ্ধারের পর পরই উথাল হয়ে ওঠে রাজ্য। নানা প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীকে। খোয়া যায় মন্ত্রীর মন্ত্রিত্ব পদও। 

উল্লেখ্য, মানুষের কাছে এখন একটা বেশ পরিচিতি লাভ করে ফেলেছেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতিতে ( SSC Recruitment Scam ) উঠে আসা একাধিক তথ্য দ্বন্দ্ব ফেলছে রাজ্যবাসীকে। তাঁর ব্যাক্তিগত জীবন নিয়েও উঠে আসছে একধিক তথ্য। পার্থ চট্টোপাধ্যায় নাকি সব কিছু জানে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। নিজেকে এই সব কিছু থেকে বাইরে রাখার যৎপরনাস্তি চেষ্টা করে চলেছেন অর্পিতা। কিন্তু কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে কোনও ভাবেই এড়িয়ে  যেতে পারছে না সে। দুর্নীতির এই অন্ধকার বেড়াজাল যেন তাঁকে ঠেলে দিয়েছে গভীর খাদের দিকে। 

arpita mukhopadhyay (7)

জানা যায়, কলকাতার শহরতলী অঞ্চলে জন্মগ্রহণ করেন অর্পিতা। মধ্যবিত্ত পরিবার। লোকে বলে, মধ্যবিত্ত হয়েও সে নাকি প্রচন্ড উচ্চাকাঙ্খী। বাবা কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মরত ছিলেন। কিন্তু চাকরি থাকতেই হটাৎ মৃত্যু হয়। তৎকালীন পরিস্থিতিতে বাবার চাকরি কন্যা পেলেও তা সে সরাসরি না করে দেয়। তবে সময় কেটে যায়। পরবর্তীকালে ঝাড়গ্রামের এক ব্যবসায়ীকে বিয়ে করেন অর্পিতা। জানা গিয়েছে, কিছু বছর পর নাকি সেই সম্পর্কও কেটে যায়। ঘর-্স্বামী ছেড়ে অর্পিতা চলে আসেন কলকাতায়। ছোট থেকেই মনের কোণে গড়ে ওঠা স্বপ্নকে স্বার্থক করতে শুরু করেন এক নতুন পথে যাত্রা। মডেলিং ও অভিনয় জগতে ধীরে ধীরে কাজ শুরু করেন তিনি। 

১৬ বছর বয়স থেকেই নাকি অভিনয় জগতে কাজ করা শুরু করেন তিনি। ছোট ছোট চরিত্রে অভিনয়ের মধ্যে দিয়ে এগোতে থাকেন। বড় পর্দার বিভিন্ন ছবিতে সহশিল্পীর ভূমিকাতেও দেখা মেলে তাঁর। তবে শুধু বাংলা কিংবা হিন্দি সিনেমা নয়। ভাগ্যকে পরখ করে দেখতে ধীরে ওড়িয়া সিনেমাতে পা বাড়ায় অর্পিতা। কিন্তু দিন শেষে সবেতেই মেলে ব্যর্থতা। বিশেষ কাজ না পাওয়া ফের চলে আসেন কলকাতার টলিপাড়ায়। এখানে এসে অভিনয়ের সঙ্গে শুরু করেন মডেলিং। 

বিশেষ ভাবে কলকাতার পুজো প্যান্ডেলের উদ্বোধনীর অনুষ্ঠানে মডেলিংয়ের কাজ শুরু করেন তিনি। কলকাতা শহরে দক্ষিণী অভিনেত্রী ( South Indian Actress ) হিসাবেই তাঁর পরিচয়। দক্ষিণ কলকাতা থেকে লেকটাউন প্রায় সর্বত্রই ছড়িয়ে পড়ে তাঁর নামডাক। আর এই পুজো উদ্বোধনীর অতিথি থেকেই আলাপ পার্থ-সুদীপের সঙ্গে। জানা যায়, এই পুজো প্যান্ডেলের উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে মডেলিং করতে গিয়েই তাঁর সঙ্গে ঘনিষ্ঠাতা বাড়ে মন্ত্রীমশাইয়ের। ততদিনে হয় তো নিজের জীবনে আগত ঝাড়গ্রামের ব্যবসায়ীকে ভুলেই গিয়েছিলেন অর্পিতা। জীবন জুড়ে তাঁর শুধুই রোমাঞ্চ। এক নতুন অধ্যায়ে জীবনের পাড়ি দেওয়া। মাটি থেকে পা আকাশের দিকে ওঠা। কিন্তু বছর ঘুরতেই সব ধুলিসাৎ। মাটিতেই এসে ফের মিশে যাওয়া। 

google-news-icon

লেটেস্ট খবর