fbpx

Bank rules: “এখন লাঞ্চ টাইম!” ব্যাঙ্কের চেপেছে অন্য কাউন্টারে ‘রেফার রোগ’? শায়েস্তা করুন নিজের হাতেই

জয়িতা চৌধুরি,কলকাতাঃ প্রায়শই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে কোন সমস্যা হলে আমরা ব্রাঞ্চে গিয়ে ভীর জমাই। অনলাইনে সবরকম সুযোগ সুবিধা থাকলেও কিছু কাজ একমাত্র স্বশরীরে ব্যাঙ্কে গিয়েই করা সম্ভব। আবার বয়স্ক মানুষদের অনেকেই অনলাইন ব্যাঙ্কিং-এ স্বছন্দ্য বোধ করেন না। তাঁদের ক্ষেত্রে ছোট- বড় যে কোন সমস্যা হলে অফলাইন ব্যাঙ্ক ও ব্যাঙ্ককর্মীরাই একমাত্র ভরসা। তবে সিংহভাগ সময় দেখা যায় গ্রাহকরা অহেতুক হয়রানির স্বীকার।

গ্রাহকদের অভিযোগ, ব্যাঙ্ককর্মীরা কখনো বলেন লাঞ্চের পরে আসতে, কখনো বা লাঞ্চের পর ঘণ্টা অপেক্ষা করে থাকতে হয় তাঁদের জন্য। তবে এই সমস্যার সমাধান রয়েছে। ব্যাঙ্কের গ্রাহক সেই ব্যাঙ্ককর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করতে পারেন। এই বিষয়ে Reserve Bank of India ( RBI )-র তরফে কিছু নিয়ম আছে। কী কী তা জেনে নেওয়া যাক!

bank rules 1

একটি বিষয় লক্ষ্য করা যায়, প্রায়শই ব্যাঙ্ককর্মীরা কাজ পরে করার চেষ্টা করেন। তাই গ্রাহককে এক কাউন্টার থেকে অন্য কাউন্টারে পাঠিয়ে তাঁদের হয়রান করেন। ব্যাঙ্ক বা ব্যাঙ্ককর্মদের অবশ্যই উচিত তাঁদের গ্রাহকদের সাথে ভাল ব্যবহার করা। তবেতাঁ রা অন্যায় করলে তার বিরুদ্ধে কি করা জেতে পারে? জানা থাকলে আর হতে হবে না ব্যাঙ্কিং হয়রানির স্বীকার। না হলেই আপনার অজ্ঞতার সদব্যবহার করবেন ব্যাঙ্কিং কর্মীরা।

bank rules f

উল্লেখ্যা, এবার Banking Ombudsman- এ আপনি জানাতে পারেন এই অভিযোগগুলি। যদি ব্যাঙ্কের কর্মীরা গ্রাহকের কাজে অহেতুক দেরি করেন, তবে সেই গ্রাহক ব্যাঙ্কের অফিসার বা নোডাল অফিসারের কাছে তাঁর অভিযোগ জানাতে পারেন। তা শোনার জন্য ব্যাঙ্কগুলিতে রয়েছে নির্দিষ্ট ফোরাম। আর একটি পথ হল, ব্যাঙ্কের টোল ফ্রী নাম্বারে ফোন। কোন কোন ব্যাঙ্কে আবার অনলাইন যোগাযোগ ব্যবস্থাও রয়েছে।

যেমন SBI-এর টোল ফ্রি নম্বর 1800-425-3800 /1-800-11-22-11. একই রকম পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের নির্দিষ্ট হেল্প লাইন নাম্বারে ফোন করে ব্যাঙ্কটির যেকোন ব্রাঞ্চের যে কন কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো সম্ভব। Banking Ombudsman-এ ফোন করে বা অনলাইনে অভিযোগ জানানো যেতে পারে। অনলাইনে অভিযোগ জানাতে https://cms.rbi.org.in –টি ব্যবহার করা যাবে। এছাড়া, 14448 -এ অভিযোগ করা যেতে পারে।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর