fbpx

Pilu:সুখের সংসারে লাগল আগুন! রঞ্জার জীবন শেষ করতে ফিরে এল মল্লারের প্রথম স্ত্রী বিন্দি

রঙ বেরঙের চরিত্র নিয়ে সেজে ওঠে ধারাবাহিক। কখনও কখনও মুখ্য চরিত্রকে ছাপিয়ে মনের মণিকোঠায় স্থান করে নেয় কোনও ছোট খাটো চরিত্র। রঞ্জা-মল্লার তেমনই দুটি চরিত্র। যারা পর্দায় এলে চোখ সরে না। নিজেদের উজার করে অভিনয় করেন দুই টেলিতারকা। পার্শ্বচরিত্র থেকে তারাই যে গল্পের প্রাণকেন্দ্রে চলে এসেছে তা বলাই যায়। রঞ্জা-মল্লার সম্পর্ক টক্কর থেকে ধীরে ধীরে প্রেমের মুখ নিচ্ছে। রঞ্জার পরিবারকে পথে বসানো,জালিয়াতি,মারধোর বিষ খাওয়ানো কী করেনি মল্লার। সেই মল্লারই ধীরে ধীরে প্রেমের ছোঁয়ায় বদলে যাচ্ছিল। হঠাৎ কোণ দুর্যোগ নেমে এল রঞ্জা-মল্লারের জীবনে?

জীবনের ধারা তো সমান নয়। সবসময় নদীতে জোয়ার থাকে না, ভাটাও তো হয়। আর তাই রঞ্জা-মল্লারের দূরত্ব যখন ক্রমশ কমে আসছে। ধীরে ধীরে টক-ঝাল সম্পর্কের একটা মিষ্টি পরিনামের দিকে এগোচ্ছে তখনই এল গল্পের নতুন মোড়। সবে রঞ্জার সেতারে গলা মিলিয়েছে মল্লার। এমন সুরেলা মুহূর্তে ঝড়ের মতোই গল্পে এল নতুন চরিত্র বিন্দি।সম্ভবত মল্লারের পুরনো প্রেমিকা বিন্দি। নিজেকে মল্লারের প্রথম স্ত্রী বলে দাবি করে সে। এমনকি অবাঙালি বিন্দি নিজেদের বিয়ের প্রমাণ স্বরূপ ছবিও দেখায়। তবে কি আবার প্রতারণা করল মল্লার? নিজে কি সত্যি প্রথম বিয়ে করে লুকিয়ে গিয়েছিল মল্লার? নাকি কারও চক্রান্তের শিকার রঞ্জা-মল্লার? তবে কী হবে রঞ্জা-মল্লার-বিন্দির ত্রিকোণ সম্পর্ক? এতগুলো জটিল প্রশ্নের উত্তর খুঁজতেই ধারাবাহিকে চোখ রাখবেন দর্শক।

বিন্দির চরিত্রে দেখা যাচ্ছে অভিনেত্রী মানসী সেনগুপ্তকে।এবারও তিনি খলনায়িকার চরিত্রে অভিনয় করছেন।এর আগে ‘কী করে বলব তোমায়’ ধারাবাহিকে কর্ণ – রাধিকার জীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলেছিল পায়েল সেন আবারও বিন্দি চরিত্রে রঞ্জা ও মল্লারের মাঝে প্রাচীর হয়ে দাঁড়াবে এতে সন্দেহ নেই। আবার দর্শকের চক্ষুশূল হয়ে উঠবেন তিনি। তবে পিলুর দর্শকের মন খারাপ। অনেকে আবার ভারি রেগেও আছেন। ধারাবাহিক মানেই একটা স্বামীর দুটো স্ত্রী সেই একঘেয়ে গল্প আর কেউ দেখতে চাননা। তবে ‘পিলু’ যে আরও জমিয়ে দেবে বিন্দি তাতে সন্দেহ নেই।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর