fbpx

সাভারকরের নামে কলেজ খুলতে চলেছে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়! সুষমা স্বরাজ, অরুণ জেটলির নামে একাধিক ভবন

ওয়েব ডেস্ক: শিক্ষাক্ষেত্রে গৈরিকীকরণ এদেশে নতুন নয়, এবার তার নবতম সংযোজন কট্টর হিন্দুত্ববাদী নেতা বিনায়ক দামোদর সাভারকরের নামে কলেজ স্থাপণ!

কিছুদিন আগেই প্রখ্যাত সাহিত্যিক মহাশ্বেতা দেবী এবং দুই দলিত লেখক বামা ও সুখরথারিনির লেখা সিলেবাস থেকে বাদ দিয়ে প্রবল বিতর্কে জড়িয়েছিল দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়। এবার তা থেকে কয়েকধাপ এগিয়ে বিনায়ক দামোদর সাভারকরের নামে কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত নিল দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শুধু তাই নয়, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর নামেও একটি কলেজ খোলার বিষয়ে চূড়ান্ত ছাড়পত্র দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল। উল্লেখ্য, এই অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের বৈঠকেই মহাশ্বেতা দেবী এবং দুই দলিত লেখকের গল্প সিলেবাস থেকে ছেঁটে ফেলে উচ্চবর্ণের লেখকদের গল্প সিলেবাসে অন্তর্ভুক্তির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সাভারকর এবং বাজপেয়ীর নামে কলেজ খোলার পাশাপাশি প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সুষমা স্বরাজ, অরুণ জেটলি সহ একাধিক বিজেপি নেতার নামে একাধিক ভবনের নামকরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও, দিল্লির প্রথম মুখ্যমন্ত্রী চৌধুরী ব্রহ্মপ্রকাশ, দেশের প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল এবং দলিত নেতা জ্যোতিবা বাই ফুলের নামেও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ভবনের নামকরণের প্রস্তাবে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে।

গত সাত বছরে শিক্ষাক্ষেত্রে গৈরিকরণের উদাহরণের ছড়াছড়ি। নাগপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সিলেবাসে আরএসএস-এর ইতিহাস সংযুক্তিকরণ হোক, কিংবা ত্রিপুরা বোর্ডের প্রশ্নপত্রে বিজেপিক নিয়ে টিকা লিখতে দেওয়া, সবকিছুর মধ্যেই গৈরিকরণের ছোঁয়া দেখছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। এমনকী কিছুদিন আগে ইউপিএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র নিয়েও গৈরিকরণের অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিল বিরোধীরা। আর এইসব কিছুর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে এনডিএ সরকারের শোচনীয় শিক্ষা নীতি। শিক্ষাব্যবস্থায় নানা ভাবে সরকারি হস্তক্ষেপ, এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পর্কে একটা পশ্চাৎমুখী মানসিকতা।

সাভারকরের নামে কলেজ,শিক্ষাক্ষেত্রে গৈরিকীকরণ,দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়,জাতীয় শিক্ষা নীতি,College named after Savarkar,Delhi University,New Education Policy

তবে শিক্ষাক্ষেত্র হোক, কিংবা ক্রীড়াঙ্গন, স্টেশন হোক, কিংবা ইতিহাস প্রসিদ্ধ কোনও জায়গা, সবকিছুর নাম বদলে দিতে কিংবা নিজেদের নামে নামাঙ্কিত করতে কার্যত উঠেপড়ে লেগেছে মোদী সরকার। এমনকী দেশের ইতিহাস থেকেও মুছে দিতে চলেছে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নাম, বদলে দিতে চলেছে ইতিহাস। স্বাধীনতার ৭৫তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’ পালন করছে কেন্দ্র। তার পোস্টারে মহত্মা গান্ধী, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, ভগত সিংদের ছবি থাকলেও বাদ দেওয়া হয়েছে ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী পণ্ডিত জওহরলাল নেহেরুকে। বরং স্বাধীনতা সংগ্রামীদের তালিকায় জায়গা পেয়েছেন ভারতের নয়া ‘বিপ্লবী’, জেল থেকে ব্রিটিশদের মুচলেকা দেওয়া বিনায়ক দামোদর সাভারকর!

google-news-icon

লেটেস্ট খবর