fbpx

KGF 3 এর পাঁচটি অজানা দিক যা জানলে আপনিও চমকে হবেন, জেনে নিন

অনীশ দে, কলকাতা: বক্স অফিসে যে বড়ো একটা ঝড় উঠতে চলেছে সেটা আগেই আন্দাজ করা গিয়েছিল। কিন্তু এ যেনো সুনামি। যশ অভিনীত ও প্রশান্ত নীল পরিচালিত কেজিএফ এর দ্বিতীয় ভাগ ১৪ই এপ্রিল মুক্তি পেয়েছে পেক্ষাগৃহে। মোট পাঁচটি ভাষায় মুক্তি পায় কে জি এফ চ্যাপ্টার ২- তামিল, তেলেগু, হিন্দি, মালায়ালাম, কন্নড়। এখনও পর্যন্ত ৫০০ কোটি টাকার গণ্ডি পেরিয়েছে ছবিটি। কিন্তু কেজিএফ ৩ (K.G.F Chapter 3) নিয়ে সম্প্রতি কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসে।

kgf 2

মার্ভেল সিনেমার কায়দায় এই ছবির মিড ক্রেডিট সিনে কেজিএফ ৩ (K.G.F Chapter 3)-এর আভাস দেন পরিচালক প্রযোজকরা। এই খবর পেয়ে বেজায় খুশি যশ ভক্তরা। কিন্তু কি কি প্রেক্ষাপটের উপর তৈরি হতে পারে কেজিএফ চ্যাপ্টার ৩ (K.G.F Chapter 3)। আসুন জেনে নিই

১) সালারের আর্মি:  ছবির শেষ দৃশ্যে দেখা যায় যশ ওরফে রকি ভাই লোকসভা ভবনে ঢুকে গুলি করছে তার প্রতিদ্বন্দ্বীকে। কিন্তু একজন গ্যাংস্টারের পক্ষে তা কিভাবে সম্ভব সেটা ভাবিয়েছে সিনেপ্রেমীরা। অনেকে এমন মনে করছেন প্রভাস সালার ছবিতে যে চরিত্রে অভিনয় করেছেন, সেই চরিত্রই তাকে সাহায্য করে। অনেকে মনে করছেন চ্যাপ্টার ৩- এ সালার ও রকিকে একসাথে পর্দায় দেখা যাবে।

kgf 3

২) ১৯৭৯-৮১: অধিরার কাছ দিয়ে কেজিএফের জমি দখল করার পর রকি চরিত্রটির কাজকর্মের তেমন কোনো ঝলক দেখাননি পরিচালক। এই তিন বছর রকি কি কি করেছে তা নিয়ে গড়ে উঠতে পারে এই ছবির পার্ট তিনের প্রেক্ষাপট।

৩) সি.আই.এ এবং ইন্দোনেশিয়ান পুলিশ: ছবির শেষ অংশে দেখা যায় সমস্ত উৎপাদিত সোনা নিয়ে রকি একটি জাহাজে চেপে আরব সাগরের মাঝে ভাসতে থাকে। সেই মুহূর্তে ভারতীয় জল পুলিশ ছাড়াও আমেরিকার বাহিনী ও ইন্দোনেশিয়ার পুলিশ তার উপর মিসাইল আক্রমন করে। কিন্তু এই ঘটনার কারণ কি?

rocky(2)

৪) মিড ক্রেডিট সীন: হলিউডি ছবির ধাঁচে তৈরি এই ছবির মিড ক্রেডিট সীনে দেখা যায়, প্রধানমন্ত্রী রমিকা সেন বা রবিনা তন্ডনের সাথে সি আই এ দেখা করতে আসে এবং বলে যে রকি আমেরিকাতে ১৯৭৯-৮১ সালের মধ্যে অনেক ক্রাইম করেছে। তবে কি চ্যাপ্টার ৩- এ আমেরিকাতে দেখা যাবে রকিকে? টা জানা যাবে ছবি মুক্তির সময়।

kgf 2.jpg featute

৫) অন্যতম বড় কন্নড় ছবি: হলিউডে এমন অনেক নায়ক আছেন যারা শুধু ফ্র্যাঞ্চাইজি ছবি করেই অন্ন সংস্থান করেন। সেরকমই এই ছবি আসার আগে কন্নড় ছবি দেখার চল একেবারেই ছিল না ভারতবর্ষে। এছাড়াও এই ছবি যে পরিমাণে লক্ষিলাভের মুখ দেখেছে সেটা এস এস রাজামৌলির ছবি বাহুবলী ও সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া RRR ছাড়া অন্য প্যান ইন্ডিয়ান ছবিরা দেখেনি।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর