fbpx

Ghost in West Bengal: বাড়ির এদিক-সেদিকে হটাৎ জল! জলে জলময় বাড়ি, কোন অশরীরির হানায় আসানসোলের এই পরিবার?

অহেলিকা দও, কলকাতা : আসানসোলের কুলটি অঞ্চলে ঘটেছে এক অলৌকিক ঘটনা। সেখানে একটা বাড়ির কখনও মেঝেতে, কখনও দেওয়ালে আবার সিলিংয়েও জমে যাচ্ছে জল। রীতিমত জল ভূত! এই ধরণের অস্বাভাবিক ঘটনা ( Ghost in West Bengal ) ঘটছে গত দেড়মাস ধরে। এমনটাই বলছেন বাড়ির সদস্যরা। তবে বাড়িতে কি কোন অলৌকিক শক্তির বাস, যে জলের মাধ্যমে নিজের উপস্থিতি প্রকাশ করতে চাইছে।

ওই বাড়ির চতুর্থ শ্রেণীর মেয়ে বাড়িতে যখন একা থাকছে বা একা পড়াশোনা করে, তখনই এই ধরণের ঘটনা ঘটছে। শিশুর গায়ে কেউ জল ঢেলে দিচ্ছে বা থুতু ছিটিয়ে দিচ্ছে। অদ্ভুত কাণ্ডকারখানার ভুক্তভোগী নিয়ামতপুরের বিষ্ণুবিহারের সেন বাড়ির সদস্যরা। জলভূতের পাল্লায় পড়ে হোম, যজ্ঞ, বাবা ফকির কোনও কিছুই বাদ রাখেননি পরিবারের লোকজন।

ghost in west bengal

শেষ পর্যন্ত বিজ্ঞান মঞ্চের দারস্থ হলেন নিয়ামতপুরের সেন পরিবারের সদস্যরা। বিজ্ঞান মঞ্চের সদস্যরা বাড়িতে যাওয়ার পর তাঁদের পরিবারের সদস্যরা জানান, বাড়ির যেখানে খুশি জল পড়ছে। কখনও মেঝেতে, কখনও দেওয়ালে আবার সিলিংয়েও৷ রীতিমত অদ্ভুত কান্ড। শুধুমাত্র বাড়ির ওই শিশু কন্যাটি সেই জল পড়া দেখতে পাচ্ছে। বা তার গায়ে জল পড়ছে। বাড়ির গৃহকর্ত্রী জানান, ”প্রথম প্রথম মেয়ের কথা বিশ্বাস করিনি। পরে দেখা গেল আচমকা বাড়ির সমস্ত জায়গা ভিজে যাচ্ছে।”

গৃহকর্ত্রী পাড়া প্রতিবেশীদের ডেকে দেখান যে জল পড়ে আছে গোটা বাড়িতে। ভূতের গুজব ছড়াতেই প্রতিবেশীরা জল ভূত দেখতে ভিড় জমান। কেউ কেউ অতি উৎসাহী হয়ে মোবাইলে ঘোস্ট ডিটেকটর দিয়ে ভূত খুঁজতেও শুরু করে দেন গোটা বাড়িতে। যদিও ওই শিশু কন্যা, যে তার এই বিষয়টি নিয়ে কোথাও কোন ভয় লাগছে না। আবার শিশু কন্যাটি বিভিন্ন সময় অসংলগ্ন কথাও বলছে৷

ghost in west bengal

ওই পরিবারের অনুরোধে কুলটির ওই বাড়িতে গিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গ বিজ্ঞান মঞ্চের বিজ্ঞান কর্মীরা এবং তার সাথে সংবাদ মাধ্যম। প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে ওই বাড়িতে বিজ্ঞানকর্মীরা এবং সাংবাদিকরা থাকলেও কোনও রকমের জল পড়া বা অন্য কোনও অপ্রাকৃতিক ঘটনা ঘটেনি। বিষয়টি পরিষ্কার হয়েছে, বাড়িতে যখন মেয়েটি একা থাকে তখনই তার সঙ্গে এই ঘটনা ঘটে।

পাশাপাশি বারবার প্রশ্ন করায় মেয়েটির মা-ও শেষে বিরক্ত হয়ে বলেন যে, ”আমার মিডিয়া কভারেজ দরকার নেই। আমি বিষয়টি প্রচার চাই না। অর্থাৎ চেপে ধরতেই বিষয়টি এড়িয়ে যেতে শুরু করেন।” তবে কি সত্যিই এমন কিছু ঘটছে নাকি এ নিছক মিথ্যা অভিযোগ তা খতিয়ে দেখার সুযোগ পাননি তারা।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর