fbpx

Nizam’s Kathi Roll: মুখে আনে স্বাদের বাহার, অল্প টাকায় ভরে পেট! জানেন কি কলকাতার অলিগলির ‛রোলের’ কাহিনী

গরম গরম পরোটার মধ্যে কাবাব মুড়ে তৈরি হয়েছিল রোল, যা আজ বাঙালির প্রিয় খাবারের মধ্যে একটি।

আজকের সময়ে শরীর ফিট রাখতে মানুষ স্বাস্থ্যকর খাবারই বেশি খেয়ে থাকে। কেননা বাইরের খাবারে থাকে প্রচুর পরিমাণে হেভি ফ্যাট, এবং ক্যালোরি, যা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষতিকর। কিন্তু মাঝেমধ্যে আমাদের সকলের মনেই বাইরের খাবার অর্থাৎ জাঙ্ক ফুড খাওয়ার সাধ জাগে। জাঙ্ক ফুডের মধ্যে জনপ্রিয় একটি খাবার হল রোল। ট্রেনে, বাসে, রাস্তার ধার দিয়ে হাঁটতে হাঁটতে খিদে পেলে একটি রোল খেয়ে নিলে ঝট করে যেন দূর হয়ে যায় খিদে। জানেন কি রোলের প্রচলন কিন্তু কলকাতাতেই হয়েছিল। আসুন জেনে নেওয়া যাক কলকাতার এই জনপ্রিয় রোলের ( Kathi Roll ) ইতিহাস সম্বন্ধে।

বিভিন্ন তথ্য অনুযায়ী খবর মিলেছে যে কলকাতার বুকেই প্রথম এই রোলের প্রচলন হয়েছিল। যদিও ঠিক কীভাবে হয়েছিল তা নিয়ে মতবিরোধ রয়েছে। জানা গিয়েছে বিশ শতকের শুরুর দিকে শেখ হাসান রাজা উত্তরপ্রদেশ ছেড়ে নিজের পরিবারের সঙ্গে কলকাতায় এসেছিলেন। এখানে এসে কলকাতা কর্পোরেশনে কাজও পেয়ে গিয়েছিলেন তিনি। তবে কাজের বাইরেও তিনি একটি পরোটার দোকান দেওয়ার পরিকল্পনা করছিলেন। এরপর তিনি সেই পরিকল্পনা মাফিক কর্পোরেশনের সামনে একটি প্লট কিনে নিজের দোকান খুলে ফেলেন। সেই দোকানটি আজকের সকলের জনপ্রিয় নিজামস্।

img 20220822 220633

রোলের উৎপত্তি সম্পর্কে ইতিমধ্যে অনেক লোককথা শোনা গিয়েছে। এক পক্ষের মতে, তখনকার এক সাহেব হাতে তেল না লাগিয়েই কাবাব খেতে চেয়েছিলেন। আর তখন কোনও উপায় না পেয়ে হাসান নিজের স্ত্রীর কাছে সাহায্য চাইলে তিনি হাসানকে বুদ্ধি দেন যে কাবাবগুলিকে একটি পরোটার মধ্যে রেখে সেটিকে একটি কাগজে মুড়ে সেই সাহেবকে দিতে। আর এভাবেই তৈরি হয় রোল। অপর এক পক্ষের মতে, সে সময়ের এক অশ্বারোহী সাহেব হাসানের দোকানে কাবাব খেতে এসেছিলেন। তখন সেই সাহেব অনেক তাড়ায় ছিলেন, যার জন্য হাসান কাবাবগুলিকে একটি পরোটার মধ্যে মুড়ে দিয়েছিলেন। আর এই নতুন খাবার সব সাহেবদের পছন্দও হয়েছিল। এভাবেই তৈরি হয়েছিল কলকাতার জনপ্রিয় রোল।

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের খাওয়ার ধরণ বদলেছে। মানুষ রোজই নতুনত্বের পিছনে ছুটছে। আর মানুষের চাহিদার ভিত্তিতে রোলের বিবর্তন ঘটেছে। এখন তো বিভিন্ন ফাইভ স্টার হোটেলেও রোলকে নতুন ভাবে বানানো হয়, নাম তার আবার র‍্যাপ। স্বাদ যদিও তার রোলের মতনই, নামেই কেবল ভিন্ন। সম্প্রতি বাজারে পাওয়া যায় গন্ধরাজ রোলও। কিন্তু আজকের এই সময়ে রোল যেভাবেই তৈরি হোক না কেন, মানুষকে কখনও নিরাশ করেনি এই রোলের স্বাদ।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর