fbpx

Jacqueline Fernandez: ৮০ লাখের ব্যাগ, ৫২ লাখের ঘড়ি! প্রেমিক সুকেশের দেওয়া উপহারের বাহার আজও সাজানো জ্যাকলিনের ঘরে

কথায় আছে ‘প্রেম একেবারে অন্ধ’। সিংহলী কন্যা জ্যাকলিন ব্যক্তিগত সম্পর্কে জড়িয়ে ছিলেন আর্থিক তছরূপ কেসে অভিযুক্ত সুকেশের সঙ্গে। মিস ইউনিভার্স অব শ্রীলঙ্কাকে বশীভূত করা বিশেষ সহজ ছিল না সুকেশের পক্ষে । মন জয় করতে বড় বাজেটের উপহার দিয়েছিলেন সুকেশ। এর তালিকা শুনলে আপনার চক্ষুস্থির হয়ে যাবে! শুধু অভিনেত্রী নয় তাঁর ভাই বোন, মাকেও এসব দামী উপহার দিয়েছিলেন ঠগ সুকেশ। কী কী ছিল সেই তালিকায়?

বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের কষ্ট দিন দিন বেড়েই চলেছে। বারংবার ডেকে পাঠাচ্ছেন ইডি। জেরায় জেরবার নায়িকা। কিন্তু কেন এমন ঘটনা ঘটছে? জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের বিরুদ্ধে ইডি যে চার্জশিটে দাখিল করেছে, তাতে লেখা আছে যে জ্যাকলিনকে প্রায় ৫.৭১কোটি টাকা উপহার দিয়েছিলেন মহাঠগ সুকেশ। এই উপহারের তালিকায় রয়েছে ডিজাইনার হ্যান্ডব্যাগ, গাড়ি, কিছু বহুমূল্য হীরার সম্ভার এবং কিছু বিদেশী পোষ্য। চলুন দেখে নিই? এই উপহার গুলির দাম কত?

সুকেশ চন্দ্রশেখর জ্যাকলিনকে গুচি,ইভস সেন্ট লরেন্ট,ডিঅর, কোম্পানির ৪ টি ব্যাগ উপহার দেওয়া দিয়েছিলেন। সাধারণত এই ব্যাগের দাম ১০ লাখ থেকে ৮০ লাখ টাকা। লুই ভিটন এবং লুবউটিনের তিন জোড়া রয়েছে জ্যাকলিন- এর৷ এই জুতোর দামই৫ থেকে ১০ লাখ টাকা। এছাড়াও, দুটি দুর্দান্ত গুচি পোশাক, সুগন্ধি, চারটি বিড়াল, একটি মিনি কুপার, দুটি হীরার কানের দুল, একটি বহুরঙা হীরার ব্রেসলেট ও রয়েছ উপহার তালিকায়।

শুধু রত্ন ভান্ডার নয়, দুটি পোষ্য উপহার দিয়েছেন জ্যাকলিনকে। জ্যাকলিন অত্যন্ত বেড়াল ভালোবাসেন। তাই যে বেড়াল টি সুকেশের থেকে পেয়েছেন অভিনেত্রী তার দাম কম করে নয় লক্ষ। এছাড়াও একটি ৫২ লক্ষের ঘড়িও তাকে দেওয়া হয়েছে। এমনকী টাকা দিয়ে ওয়েব সিরিজ, সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ করে দিতেন সুকেশ। আর সেই প্রলোভনেই পা দিয়ে জীবন তছনছ বলিউডি অভিনেত্রীর।

সূত্রের খবর, জ্যাকুলিনকে ছাড়াও, তার মা, বোন ও ভাইকেও উপহার দিয়েছিলেন সুকেশ। জ্যাকলিনের মাকে দুটি বড় গাড়ি উপহার দিয়েছিলেন এই মহান ম
ঠগ ব্যক্তি। জ্যাকুলিনের বোনকেও প্রায় ১৪ লাখ টাকার উপহার দেওয়া হয়। এবং তার ভাইকে ৭৯ লাখ টাকা পর্যন্ত উপহার দেওয়া হয়েছে। তবে, জ্যাকলিন বলেছেন, সুকেশ যে মিনি কুপার গাড়িটি তাকে উপহার দিয়েছিলেন তা তাকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে যার এতো টাকা অনায়াসে আসে তার কাজের বিষয়ে কি কিছু জানতেন না জ্যাকলিন। জ্যাকলিন তার স্বীকারোক্তিতে বলেছেন, সুকেশ জানিয়েছিল সে একজন টিভি নেটওয়ার্ক এবং একটি জুয়েলারি ব্র্যান্ডের মালিক। কিন্তু জিজ্ঞাসাবাদ করা এখনও অনেক বাকি। ইডি আধিকারিকরা জ্যাকলিনকে গ্রেপ্তার করতে পারেন যেকোনও সময়।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর