fbpx

Ajay-Kajol : কাজলকে সপাটে থাপ্পড় মেরেছিল অজয়! আচমকাই নাকি পেটে নষ্ট হয়েছিল অভিনেত্রীর প্রথম সন্তান

নেহা চক্রবর্ত্তী, কলকাতা :বলিউডের ইতিহাসে চোখ বোলালেই দেখা যাবে বহু নায়ক-নায়িকার মধ্যে সম্পর্ক গড়ে উঠেছে অভিনয় সূত্রে। কোনও কোনও মিউচ্যুয়াল বন্ধু বান্ধবদের জন্য গড়ে উঠেছে কোনও সম্পর্ক আবার কাজের সূত্রেই শুরু হয়েছে। এই দুই ধরনের প্রেম সচারাচর দেখে এসেছেন নেটিজেনরা। তেমনই শুরু হয়েছিল কাজল এবং অজয় দেবগনের জুটি।১৯৯৯ সালে বিবাহ করেন এই জুটি। ‘হালচাল’ ছবির সেটে প্রথম দেখা হয়েছিল অজয় এবং কাজলের। তখন থেকেই শুরু হয়েছিল প্রেম। এসব যদিও পার করে ফেলেছেন দুজনে। এখন তারা অনেক বছর ধরে সংসার করছেন আছে সন্তানও। তবু একটা সময় এই জুটির উপর নেমে এসেছিল অন্ধকার। যা তাঁরা কেন বলিউডে কান পাতলেই অনেকেই ভয় পেয়ে মুখে রা অবধি কাটেন না। কী এমন হয়েছিল তাদের সঙ্গে!

img 20220819 165208

একটা সময় ‘কভি খুশি কভি গম’-এর শুট করছিলেন কাজল। তখন তিনি ছিলেন অন্তঃসত্ত্বা অবস্থাতেই। শাহরুখের সঙ্গে তাঁর কেমিস্ট্রি জমে উঠছিল ক্রমশই। ছবির পরিচালক ছিলেন করণ জোহর। ঠিক সেই সময় জনপ্রিয় গানের নাচের দৃশ্যের শুট করছিলেন কাজল। তখনই ঘটে যায় দুর্ঘটনা। যা পরে আকার নেয় চরম পর্যায়ের। আচমকাই পড়ে যান কাজল। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে হাজির হন স্বামী অজয়। অজয় নাকি বারবার বারণ করেছিলেন যেন কাজল নাচের দৃশ্যে অভিনয় না করে। কিন্তু শোনেননি অভিনেত্রী। অজয় তাই নিজের রাগ সামলাতে না পেরে সবার সামনেই নাকি থাপ্পড় মেরেছিলেন কাজলকে।

এই ঘটনায় হতবাক হয়ে যান উপস্থিত হওয়া সকলেই। এরপর কাজলকে ভর্তি করতে হয় হাসপাতালে। সেখানে জানা যায়, তাঁর গর্ভস্থ সন্তান মারা গিয়েছে। এরপর করণ জোহরের সঙ্গেও অজয়ের সম্পর্ক তিক্ত হয়ে ওঠে। অজয় দায়ী করেছিলেন করণকে তাঁদের প্রথম সন্তান নষ্ট হওয়ার পিছনে।

উল্লেখ্য কাজলের পরের সন্তানও গর্ভেই নষ্ট হয়ে যায়। অবশেষে কাজল মা হন ২০০৩ সালের ১৯ এপ্রিল। জন্ম দেন মেয়ে নাইসাকে।এরপর পুত্র সন্তানেরও জন্ম দিয়েছিলেন অভিনেত্রী। এখনও একাধিক সাক্ষাৎকারে অতীতের সেই অন্ধকারময় দিনকে মনে করেন কাজল। যেখানে তিনি গর্ভপাতের ঘটনার কথা স্বীকার করে নিলেও অজয়ের চড় মারা প্রসঙ্গ কোনওদিনও তোলেননি কারোর সামনেই।

 

google-news-icon

লেটেস্ট খবর