fbpx

LED TV Local Train: শুরু হল যাত্রা, এবার টিভি দেখতে দেখতেই হাওড়া থেকে কাজে যাবেন নিত্যযাত্রীরা

লোকাল ট্রেনে ( Local Train ) যাত্রা মানে কিছু অচেনা মানুষ সঙ্গে এক রাশ গম্ভীর মুখ। অবশ্য মাঝে মধ্যে কোথাও গল্প-আড্ডা, হাসি-ঠাট্টার শব্দ কানে এলেও সময়ের সঙ্গে তা অনেকটাই কমে এসেছে। অর্থাৎ, একটা সময় ছিল দৈনিক যাত্রীদের ( Daily Passengers ) মধ্যে গড়ে উঠত গল্প-গুজবের মহল। কিন্তু হাতের ৫ ইঞ্চির স্মার্ট ফোনটা যেন সেই সকল হাসি-ঠাট্টাকে আপাতত থমকে দিয়েছে। কিছু মানুষ অবশ্য এই দ্রুত গতির জীবনে ব্যাতিক্রম হয়ে রয়েছে। কিন্তু তাঁদের যে আমরা চিনি ‘পিছিয়ে থাকা’ হিসেবে। 

উল্লেখ্য, যাত্রীদের মধ্যে হাসি-ঠাট্টার এই প্রবাহকে বজায় রাখতেই যেন নতুন এক উদ্দ্যেগ নিয়ে হাজির ভারতীয় রেল। দেশের এক মাত্র মুম্বাইতে ( Mumbai ) যে পরিষেবা পাওয়া যায়, তা এবার দেখা যাবে হাওড়া ডিভিশনে ( Howrah Division )। যাত্রাপথে যাত্রীদের একঘেয়েমি দূর করতে একটি ২৭ ইঞ্চির টিভি লাগিয়ে দেওয়া হবে ট্রেনের কামরার উপরের দিকে। এই টিভির সঙ্গে অবশ্য গার্ড বা পাইলট ভ্যানের কোনও রকম সম্পর্ক থাকবে না। সম্পূর্ণ সার্ভারের মধ্যে দিয়ে চালনা করা হবে এটিকে। এক কথায় ‘রেল এন্টারটেইনমেন্ট’। খেলা থেকে সিনেমার দৃশ্য, গান, ভ্রমণ প্রায় সবই দেখানো হবে এই টিভি মাধ্যমে। সঙ্গে মুনাফার উদ্দেশ্যে থাকবে কিছু বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন।

local train led

ইতিমধ্যে জানা গিয়েছে, সোমবার অর্থাৎ আজ থেকেই শুরু হবে এই পরিষেবা। হাওড়া ডিভিশনের মোট ৫০টি লোকাল ট্রেনের মধ্যে দেখা যাবে এই টিভিটি। প্রতি কোচে চারটি টিভি সেট সহ গোটা ট্রেন জুড়ে থাকবে মোট  ৪৮টি টিভি সেট। এদিন ১১.৫০ মিনিটের ব্যান্ডেল লোকালটি থেকে শুরু হবে এই রেলে এই এন্টারটেইনমেন্ট যাত্রা। তাই  আজ যেন এই ট্রেনের যাত্রীরা রেলে চাপতেই পারেন চমকে উঠতে। 

এ প্রসঙ্গে হাওড়ার সিনিয়র ডিভিশনাল কমার্শিয়াল ম্যানেজার সুজিত সিনহা জানান, হাওড়া ডিভিশনে ৫০টি লোকাল ট্রেনে এই পরিষেবা চালু হচ্ছে। একটি বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং এবং কম্পিউটার সংস্থা  এই গোটা বিষয়টির দায়িত্বে থাকবে। এর জন্য তাঁরা বার্ষিক ৫০ লক্ষ টাকা দেবে রেলকে। তিন বছর পর ১০ শতাংশ হারে ভাড়া দেবে। এই পরিষেবার কথা শুনে উৎসাহিত যাত্রীরা। টিভি কোচে যাত্রা করার জন্য অনেকই দৈনিক যে ট্রেন ধরেন সেই ধারার বাইরে বেরিয়ে আজকের ব্যান্ডেল থেকে ১১.৫০ মিনিটের ট্রেনটি ধরতে বেশি আগ্রহী। এ প্রসঙ্গে এক নিত্যযাত্রী জানিয়েছেন, সে প্রতিদিন সাঁতরাগাছি থেকে হিন্দমোটর যান। রোজই ১০টা নাগাদ হাওড়া থেকে ট্রেনে চড়েন কিন্তু আজ সে ১১.৫০ মিনিটের ট্রেন ধরে টিভি দেখতে দেখতে কাজে যাবেন। 

google-news-icon

লেটেস্ট খবর