fbpx

Independence Day 2022: যেন শুধুই দায়িত্ব পালনে শহীদদের সম্মান! জুতো পরেই পতাকা উত্তোলন মুর্শিদাবাদের এসডিও-এর

জুতো পরেই হল পতাকা উত্তোলন! স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তিতে এমনই অভিযোগ মুর্শিদাবাদের এসডিওর বিরুদ্ধে

মন্টি শীল, কলকাতা: গতকাল অর্থাৎ ১৫ আগস্ট গোটা দেশ জুড়ে জাকজমকের সঙ্গে পালন করা হয়েছে ভারতবর্ষের ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবস ( Independence Day )। আর সেই উপলক্ষে বিভিন্ন সংগঠন থেকে শুরু করে বিভিন্ন সরকারি দফতর, স্কুল-কলেজে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সঙ্গে সঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়েছে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। শুধু তাই নয়, কিছু কিছু জায়গায় স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজন করা হয়েছিল কুচকাওয়াজের। যেখানে উপস্থিত থাকতে দেখা গিয়েছে সমাজের কিছু গুনিজদের। এমন এক গৌরবময় দিনের শুরুটা ভাল হলেও, দিনের শেষে এক বিতর্কিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে রীতিমত উত্তাল হয়ে উঠল সমগ্র নেটদুনিয়া।

কিন্তু কোন ঘটনার দরুন এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হল গোটা রাজ্যবাসীকে? সূত্র অনুযায়ী জানা গিয়েছে, এদিন সারা দেশের মত জাঁকজমকের সঙ্গে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের পাশাপাশি স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল রাজ্যের ঐতিহ্যবাহী শহর মুর্শিদাবাদের ( Murshidabad ) ডোমকলে অবস্থিত এসডিওর দফতরে। যেখানে উপস্থিত ছিলেন খোদ সেখানকার এসডিও ( SDO)। আর এই বিতর্কের সূত্রপাত ঘটেছে ডোমকলের এসডিওকে কেন্দ্র করে।

16c52

জানা গিয়েছে, এদিন অনুষ্ঠানের সুচনা করা হয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে। আর সেই মত এসডিও এসে উপস্থিত হলেন শহিদ বেদিতে। করলেন পতাকা উত্তোলন, সম্মান জ্ঞাপন করলেন শহিদ বেদিতে। সূচি অনুযায়ী সবকিছু সম্পূর্ণ হওয়ার পরেও দানা বাঁধল বিতর্ক। কারণ, মুর্শিদাবাদের এসডিও সুমিত রায় মহাশয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি শহিদ বেদিতে উঠে দেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করার সময় পায়ে জুতো পড়ে ছিলেন। উক্ত অনুষ্ঠানের বিশেষ মুহূর্তেটি লেন্স বন্দি করার সময় এই চিত্র সকলের সামনে উঠে আসে। যা নেটমাধ্যমে শেয়ার করা মাত্রই মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। এমনকী, শহিদ বেদিতে পায়ে জুতো নিয়ে খোঁদ এসডিওর ওটাকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়াতে নিন্দা জানিয়েছেন অনেকেই।

শুধু তাই নয়, এসডিওর এই কাজে রীতিমত ক্ষুদ্ধ খোঁদ মহকুমা শাসক। প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, দেশের একজন দায়িত্বশীল নাগরিক এবং ভারপ্রাপ্ত এসডিও হয়ে সুমিত রায় কীভাবে এমন কাজ সংগঠিত করতে পারলেন। যদিও এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কোনও সদুত্তর দিতে চাননি অভিযুক্ত এসডিও। তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে এই চিত্র সামনে আসার পর স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্নের মুখে পড়েছেন মুর্শিদাবাদের মহকুমা শাসক। এমনকী অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, ‘যদি খোঁদ এসডিও এমন কাজ করতে পারেন তবে আগামী প্রজন্ম তাঁদের কাছ থেকে কী বার্তা পাবেন।’ আবার অনেকেই কটূক্তির সুরে নেটমাধ্যমে বলেছেন, এই ঘটনা বিরল, এটা দেশের জাতীয় পতাকার অবমাননা ছাড়া আর কিছু নয়।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর