fbpx

আজম শরীফে চাদর চড়িয়ে বিতর্ক, বলিউডের দেখাদেখি টলিউডেও শুভশ্রীর ‘দূর্গা’ সাজে বয়কটের ডাক

শুভশ্রীকে এইবার দূর্গা রূপে দেখতে নারাজ দর্শকরা। কিন্তু এর পিছনে কারন কী?

অনীশ দে, কলকাতা: টলিউড অভিনেত্রীদের বরাবরই মহালয়ার (Mahalaya 2022) অংশ হতে দেখা গিয়েছে। এই তালিকায় প্রায় সমস্ত অভিনেত্রীদের নামই রয়েছে। গত বছরের মতো এই বছরও জি বাংলায় (Zee Bangla) দেবী দুর্গা রূপে দেখা যাবে শুভশ্রী গাঙ্গুলিকে (Subhasree Ganguly)। তবে এইবার হাওয়া পাল্টেছে। শুভশ্রীকে এইবার দূর্গা রূপে দেখতে নারাজ দর্শকরা। কিন্তু এর পিছনে কারণ কী? শুভশ্রীর (Subhasree Ganguly) ইসলাম প্রীতি, এমনটাই মনে করছেন দর্শকদের একাংশ। এই বছরের মার্চ মাসে নিজের ছোট্ট ছেলে ইউভান এবং স্বামী রাজ চক্রবর্তীর সঙ্গে আজমের শরীফে গিয়ে চাদর চড়িয়ে ছিলেন। আর এই দেখেই তেলে বেগুনে জ্বলে ওঠেন অনেকে। তাদের মতে, শুভশ্রী (Subhasree Ganguly) হিন্দু ধর্মাবেগে আঘাত হেনেছেন। দেবী দুর্গা রূপে শুভশ্রীর আত্মপ্রকাশ ঘটতেই আবার উঠে এল সেই বিতর্ক।

suhasree 2

অবশ্য এই প্রথম নয়। এর আগেও ধর্ম রোষের মুখে পড়েছেন শুভশ্রী (Subhasree Ganguly)। কয়েকদিন আগেই মুক্তি পায় রাজ চক্রবর্তী পরিচালিত ছবি ধর্মযুদ্ধ। সেই ছবিও বয়কটের ডাক দেয় নেটিজেনরা। কারন সেখানে হিন্দু ধর্মাবেগকে আঘাত করা হয়েছে। আর আবার সেই রোষের মুখে পড়তে হলো শুভশ্রীকে। মহালয়ায় জি বাংলায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ‘সিংহবাহিনী ত্রিনয়নী’। এই অনুষ্ঠান ঘিরেই বিতর্কের পারদ চড়ছে ক্রমশ। অনেকের মতেই, অভিনেত্রী ইসলাম তোষণ করেন তাই তাঁকে দেবী দুর্গার চরিত্রে মেনে নিতে নারাজ সাধারন মানুষ। সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার হচ্ছে একের পর এক মিম।

suhasree 3

এই বয়কট প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন শুভশ্রী। অভিনেত্রী জানিয়েছেন, “যারা ধর্ম নিয়ে এগুলো করছে তারা অশিক্ষিত, তাঁদের জীবনে কোনও কাজ নেই, অযোগ্য, অপাক্তেয়, ফেসলেস কিছু মানুষ। আমি এদের নিয়ে কোনও কথাই বলতে চাই না। এরা কী বলল না বলল সেটা আমাকে স্পর্শও করে না। আমার এই বিষয়ে কোনও বক্তব্য, কোনও প্রতিক্রিয়া নেই এই বিষয়ে।” বাংলা ইন্ডাস্ট্রি এই মুহূর্তে প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। একের পর এক ছবি বক্স অফিসে ফ্লপ করছে। তার উপর বয়কটের সংস্কৃতি বাংলাতেও প্রবেশ করেছে ইদানিং।

suhasree 4

এই বছর শুভশ্রীর মোট তিনটি ছবি মুক্তি পায়, হাবজি গাবজি, ধর্মযুদ্ধ এবং বিসমিল্লাহ। তিনটি ছবিই ভিন্নধর্মী। তবে কোনোটিই বক্স অফিসে সাফল্য অর্জন করতে পারেনি। এমনকি ধর্মযুদ্ধ এবং বিসমিল্লাহ খুবই স্পর্শকাতর ছবি। আর এই দুই ছবিই নিয়েই দর্শকরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। অবশ্য ছবি নির্মাতারা সাফ জানিয়েছিলেন, কোনও ধর্মাবেগকে আঘাত করার উদ্দেশ্য তাদের ছিল না। অতিমারির পরবর্তী সময়ে দর্শকদের সহনশীলতা যে কমেছে, তা বলাই বাহুল্য। দেখার অপেক্ষা শুভশ্রী দূর্গা রূপে জি বাংলার ঝুলিতে টিআরপি আনতে পারেন কি না?

google-news-icon

লেটেস্ট খবর