fbpx

Mithai: গোপালের কৃপায় বোমা থেকে বাঁচল মনোহরা! রাগের মাথায় ওমির দিকে গুলি চালাল সিড

ঘনিয়ে এল মহাবিপত্তি।’ মিঠাই’ ধারাবাহিকে চলছে টানটান পর্ব। ওমির চক্রান্তে বাড়িতে লাগানো হয়েছে টাইম বোম। তার সঙ্গে যুক্ত হয়ে আছে দরজা-জানালার তার। ফলে দরজা জানালা স্পর্শ করলেই বিপর্যয় নেমে আসতে পারে। বাইরের জগতের সঙ্গে সমস্ত যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। পুলিশ, প্রশাসন থেকে বোমা নিষ্ক্রিয়কারী কেউ ই ভেতরে ঢুকতে বা বাইরে বেরোতে পারছে না। সর্বক্ষণ ওমির নজরবন্দি বাড়ির প্রত্যেক সদস্য। মনোহরার সকলে একযোগে গোপালের শরণাপন্ন। গোপালের সদিচ্ছায় বম্বের হাত থেকে বাঁচবে পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু অপেক্ষা করে রয়েছে আরও এক বিপদের ইঙ্গিত। আসুন জেনে নিই? কী ঘটতে চলছে আপনাদের প্রিয় ধারাবাহিক মিঠাইতে!

প্রাণঘাতী বোমার আশঙ্কায় মনোহরার প্রত্যেকেই মেজাজ হারাচ্ছেন।কেউই আর নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারছে না। এদিকে উত্তরোত্তর বাড়ছে ওমির হুমকি। তবে পিঙ্কি এসে বাড়ির আশেপাশে থেকে দাদা ওমিকে অনুরোধ করে বোমা নিষ্ক্রিয় করার জন্য। একরাশ ঘৃণা ছুঁড়ে দেয় তার কৃতকার্যের জন্য। কিন্তু ওমি তখন প্রতিহিংসায় অন্ধ আবার বোনের প্রতি স্নেহেও সে দুর্বল। পিঙ্কির প্রাণহানির আশঙ্কায় কিছুটা ভেঙে পড়ে ওমি। তখন পরিস্থিতি একেবারে হাতের বাইরে। ওমিও পারবে না বোমা বিকল করতে। কারণ নির্দিষ্ট সময়ের পর বোমা স্বয়ংক্রিয় হয়ে উঠেছে। এমন সময় পুলিশ ঘিরে ধরে ওমিকে। পুলিশকে ফাঁকি দিয়ে ওমি পালায়।
img 20220817 113105
শেষ মুহূর্তেও মিঠাই গোপালের ওপর ভর্সা হারায় না মিঠাই। এক অভিনব পদ্ধতিতে গোপালের ইশারার অপেক্ষা করে। বোমার লাল ও হলুদ তারের রঙ মিলিয়ে লাল হলুদ ফুল রাখে গোপালের মাথায়।গোপালের মাথা থেকে লাল ফুল খসে পড়লে, মিঠাই জানায় গোপালের ইঙ্গিতে লাল তার কাটার নির্দেশ রয়েছে। সেইমতো সিদ্ধার্থ লাল তার কেটে বিপদ মুক্ত করে নিজের পরিবারকে। সকলে বলে ওঠে, ‘জয় গোপাল’। প্রাণঘাতী বিপদের হাত থেকে বাঁচল মিঠাই পরিবার। কী ভাবছেন এখানেই শেষ? সকলেই বিপদের থেকে রক্ষা পেল? একদম না। আরও বড়ো ভাগ্য বিপর্যয় অপেক্ষা করে আছে মিঠাই পরিবারের জন্য।

পরিবারকে রক্ষা করেও শান্তি নেই সিদ্ধার্থের। রাগে উন্মাদ হয়ে গেছে সে। ওমির ওপর ক্রোধে দিশাহারা হয়ে উঠেছে। সকলের চোখের সামনে দিয়ে ছুটে গেছে ওমির ওপর প্রতিশোধ নিতে। ওমির ফ্যক্টরিতে লুকিয়ে ছিল সে। সিদ্ধার্থের ওপর প্রতিহিংসা সফল করার জন্য অপেক্ষা করছিল সে। সেখানেই শুরু হয় ভয়াবহ লড়াই। বন্দুক নিয়ে টানাটানি। ওমি বন্দুক চালাতে গেলে সিড বাধা দেয়। বন্দুক নিয়ে শুরু হয় লড়াই। দুজনেই বন্দুক নিয়ে টানাটানি করতে থাকে। উপস্থিত হয় বাড়ির সকলে ও পুলিশ। রাতুল ওদের বাধা দিতে যায়। কিন্তু বিফলে যায় সমস্ত চেষ্টা। ওমির মারণ কামড় থেকে রক্ষা পায় না সিড। সিডের হাতে ধরা বন্দুক থেকে গুলি ছিটকে ওমির লাগে। লুটিয়ে পড়ে ওমি। সিদ্ধার্থর হাতে ধরা থাকে বন্দুক। কী হবে সিদ্ধার্থর? ভাগ্যের পরিহাসে কী জেলে যাবে সিদ্ধার্থ? ওমিকে খুন করার অপরাধে কী শাস্তি হবে তাঁর?
https://youtu.be/ZRiQeISLCnw
মিঠাইয়ের দর্শকরা আবার নড়ে চড়ে বসেছে। TRP তালিকায় উঠতে চলেছে ঝড়। বোমার দৃশ্য অত্যন্ত পছন্দ করেছেন দর্শক। কিন্তু মিঠাই প্রেমীরা সিদ্ধার্থের শোকে উন্মাদ হয়ে উঠেছে। কেউ মেনে নিতে পারছে না বিনা অপরাধে মুহূর্তের দুর্ঘটনায় জেল জীবন কাটাতে হবে সিডকে। আগামী দিনে কী ঘটে সেই দিকে চোখ রাখছে দর্শক।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর