fbpx

Raveena Tandon: “বাবা কী ভাববে?” অক্ষয়ের সঙ্গে বৃষ্টিতে রোম্যান্টিক ভাবে নেচে দুশ্চিন্তায় ঘুম উড়েছিল রাবিনার

সালটা নব্বই দশক।রাভিনা ট্যান্ডন ( Raveena Tandon ) ও অক্ষয় কুমারের ( Akshay Kumar ) হিট জুটি ঝড় তুলল পর্দায়। গানটা বর্ষার। প্রেমের বৃষ্টিতে ভিজছে বলিউড কাপেল। রবিনার কোমড়ের ভাঁজে ভাঁজে চোখ আঁটকে যাচ্ছে সে যুগের দর্শকের। শুধু সে যুগ নয়, রবিনা টন্ডনের লাস্যময়ী নাচে ফিদা এযুগের দর্শক। প্রতিটি বৃষ্টিতে ভেজার দৃশ্যে তরুণ তরুণীর মনে হিল্লোল তোলে, ‘ টিপ টিপ বর্ষা পানি,( Tip Tip barsa paani )পানি মে আগ লাগা দে’। প্রতিটি ডান্স রিয়্যালিটি শোতে আজও এই গানে মঞ্চে আগুন লাগায় নৃত্য শিল্পীরা। চিরসবুজ এই গানটি স্থায়ীত্ব দিয়েছিল রবিনাকে। অভিনেত্রীর পালকে জুড়ে ছিল ডান্সিং কুইনের তকমা। তবে শুনলে আশ্চর্য হবেন এই গানে প্রথমে নাকি নাচ করতেই চাননি ডান্স কুইন রবিনা! কেন জানেন?

রবিনা ও অক্ষয় জুটি একসঙ্গে অনেক হিট ছবি উপহার দিয়েছেন বলিউডকে। এর মধ্যে একটি ছবির নাম্ ছিল মোহরা। মোহরা ছবির গান ‘টিপ টিপ বর্ষা পানি’ যা সেই যুগের তুলনায় একটি অত্যন্ত সাহসী গান ছিল। অন্তরঙ্গ দৃশ্যে ভরা এই গানটি ব্যাপক হিট হয়েছিল।কিন্তু বেঁকে বসেন রবিনা। পরে তাকে প্রায় বাধ্য করা হয় এই গানে নাচার জন্য। কিন্তু এর পেছনে ছিল কী কারণ? মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী,এই গানে ছিল অনেক ঘনিষ্ঠ দৃশ্য। শরীরী আবেদন ছিল সবচেয়ে বেশি। লাস্যময়ী নৃত্য করতে ভয় পাচ্ছিলেন অভিনেত্রী?কিন্তু কাকে? আসলে রবিনা বাবার ভয়ে এই গানের শুটিং করতে চাননি। আসলে গানটা দেখে বাবা কি বলবেন সে ভয় ছিল তাঁর। ভাবুন একবার! বলিউড স্টার হয়েও বাবাকে ভয় পেতেন অভিনেত্রী। আসলে পৃথিবীর সকল ব্যক্তিই বাবাকে ভয় করেন। তবে এরপর ছবির পরিচালক রাজীব রায় রবিনাকে অনেক বুঝিয়ে বলেন। তিনি বাবাকে এই ছবিটি না দেখানোর পরামর্শ দেন রবিনাকে। এর পর গানটির শুটিং করেন রবিনা ট্যান্ডন। আর এই গানটি ছবির মোড় ঘুরিয়ে দেয়।এর সঙ্গে ‘তু চিজ বাদি হ্যায় মস্ত মাস্তও’ বড় হিট হয়ে যায়।

আরও অনেক কান্ড রয়েছে। অক্ষয়ের বিপরীতে নায়িকা হওয়ার কথা ছিল দিব্যা ভারতীর। তিনি ছবির জন্য চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পরে ৫ দিন শ্যুটিংও করেছিলেন। কিন্তু তার পরেই বিপত্তি। আচমকা মুম্বইয়ের এক বহুতলের বারান্দা থেকে পড়ে মারা যান দিব্যা। এর পরেই চরিত্রটিতে অভিনয়ের প্রস্তাব আসে রবিনার কাছে। তখন তিনি মোটেই রাজি হচ্ছিলেন না।পরে অনেক কষ্টে তাকে রাজি করানো হয়েছিল।

তবে আজকাল রবিনা ট্যান্ডন তার বিবাহিত জীবন নিয়ে অত্যন্ত খুশি। এর পাশাপাশি তিনি সিনেমাতেও কাজ রয়েছেন। মাত্র কয়েক মাস আগে মুক্তি পেয়েছে কেজিএফ 2। সেই ছবিতে তিনি ছিলেন অন্যতম আকর্ষণ। রবিনা ট্যান্ডনও আজকাল সোশ্যাল মিডিয়াতে খুব সক্রিয় থাকেন। নিত্য নৈমিত্তিক সমস্ত ঘটনা ভক্তদের সঙ্গে ছবি এবং ভিডিওর মাধ্যমে ভাগ করে চলেছেন। মাঝে মধ্যে ডান্স রিয়্যালিটি শোতে বিচারক আসনে দেখা যায় তাঁকে। নাচ-গান নিয়ে মেতে থাকেন তিনি। শো-তেও প্রায়ই ধুম মাচাতে দেখা যায় রবিনাকে।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর