fbpx

Saheber Chithi: ‘বাপের বাড়ি বনাম শ্বশুর বাড়ির’ দ্বন্দ্বে পড়েছে চিঠি, পাশে থাকবে কি সাহেব?

সম্প্রতি শুরু হয়েছে স্টারের ( Star Jalsha ) একাধিক চমক। কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে ‘এক্কা দোক্কা’ ও ‘সাহেবের চিঠি’র ( Saheber Chithi ) আবির্ভাব। ইতিমধ্যেই লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘এক্কা দোক্কা’কে টেক্কা দিয়ে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে সাহেবের চিঠি। এর একটাই কারণ প্রতীক সেন ও দেবচন্দ্রিমার ( Pratik Sen and Debchandrima Singha Roy ) প্রেমের রসায়ন। তবে ধারাবাহিক থাকবে আর খল চরিত্র থাকবে না তা কি হয়? নায়িকার জীবনকে অতিষ্ঠ করতে আবির্ভাব হবেই তাদের। তাই নতুন প্রোমোতে একঝলক দেখা গেল ‘বাপের বাড়ি বনাম শ্বশুর বাড়ি’। কী হয়েছে?


আসলে কথায় বলে, মেয়েদের নিজের কোন বাড়ি নেই।যখন যেখানে থাকে সেটাই তার বাড়ি হয়ে ওঠে। শ্বশুর বাড়ি এসে সেটাকে আপন করে নিতে হয়। চিঠি একটি মধ্যবিত্ত পরিবারে পোস্টম্যানের চাকরি করত। সেখান থেকে শ্বশুর বাড়িতে এসছে। শ্বশুর বাড়ি অত্যন্ত ধনী পরিবার। তবে তার আসা মূলত সাহেবের অসহায়তাকে কাটিয়ে তাকে সাহায্য করার জন্য। কিন্তু সেই বাড়িতেই অপদস্থ হতে হল তার বোন ও পরিবারককে।

প্রোমোতে দেখানো হয়েছে, টাকা চুরি গিয়েছে সাহেবের বাড়ি থেকে। বাইরের লোক বলে দোষ চাপানো হচ্ছে চিঠির পরিবারের ওপর। শ্বশুর বাড়ির পিসি ও সারা এই দুজন সবার সামনে চিঠির বোনের ব্যাগে টাকা খুঁজতে যায় যা অত্যন্ত অপমান জনক। সেই মুহূর্তে সাহেব এসে বাধা দেয়। সারার হাত থেকে ব্যাগ কেড়ে নিয়ে। পরিবারের সামনে চিঠির সম্মান রক্ষা করে। এভাবেই চিঠির মনে আরও একটু জায়গা করে নেয় সাহেব।

অল্প কিছু দিনেই ‘সাহেবের চিঠি’ এখন বাংলার ঘরে ঘরে। প্রতীক সেন নিজে একজন ব্র্যান্ড বলা যায়। তিনি যে সিরিয়ালে থাকেন সেটাই হিট।তবে ‘সাহেবের চিঠি’ গল্প মানুষকে আকৃষ্ট করেছে। আর প্রতি প্রোমোতে থাকছে নতুন চমক। ফলে বোর হওয়ার ব্যাপার একেবারে নেই। সাহেবের অসহায়তায় যেমন চিঠি পাশে এসে দাঁড়িয়েছে, তেমনি চিঠির বিপদে সাহেব হয়েছে তার সহায়। দর্শক তো এমনটাই চায়।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর