fbpx

Shruti Das: “কালো মেয়েরা সাদা পোশাক পরবে কেন? ” কটাক্ষের যোগ্য জবাব দিলেন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস

  1. ছোট পর্দায় ত্রিনয়নী ধারাবাহিকের মাধ্যমে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন শ্রুতি দাস। সেদিনই চিনিয়েছিলেন নিজেকে। বাকি আর পাঁচটা মেয়ের থেকে একেবারেই আলাদা তিনি। কী অভিনয়ে কী ব্যক্তিত্বে! সমাজ যত বদলাচ্ছে তত সামাজিক ট্যাবু গুলি ভাঙছে। “সুন্দর মুখের জয় সর্বত্র” কিন্তু সুন্দরের ব্যাখা কী সাদা আর কালোয়? গ্রামের মেয়ে, গায়ের রং চাপা দেখেই ত্রিনয়নীর জন্য উপযুক্ত মনে করা হয়েছিল শ্রুতিকে। কিন্তু শুধু গায়ের রঙ নয়, অভিনয়েও সে যথেষ্ট নৈপুণ্যের পরিচয় দিয়েছে। তবে সিরিয়ালের দর্শক থেকে সাধারণ মানুষ তাদের কী আদৌও চোখ খুলছে? আজও অভিনেত্রীকে গায়ের রঙের জন্য শুনতে হয় নানা কটূক্তি। এমনকি পরিচালক স্বর্ণেন্দু সমাদ্দারের বিশেষ বান্ধবী হিসেবেও ‘কাজ পাইয়ে দেওয়ার’ তকমা জোটে। মানুষের তৃতীয় চক্ষু খোলাতেই যেন শ্রুতির জন্ম। বরাবর ছক ভাঙা অভিনেত্রী এবারও দিলেন যোগ্য জবাব।

অভিনেত্রী শ্রুতি জানিয়েছেন, মানুষ বাংলা সিরিয়ালকে বলেন আজগুবি, অবাস্তব। অথচ নিজেরাই প্রাচীন চিন্তাধারা নিয়ে থাকেন। উদাহরণ দিয়ে অভিনেত্রী বলেন, “সেদিন শুনলাম কোনো এক মেগা সিরিয়ালে বলা হচ্ছে, ও কালো মেয়ে ওকে কালো টিপ পরাস না সাদা টিপ পরা, তবে খুলবে, এটা একদম বাস্তব কথা, অতিরঞ্জিত কিছু নয়, আমার সাথেই ঘটেছে। আমার গায়ের রঙ কালো বলেও আমাকে একই কথা বলা হত।” আসলে মানুষের চিন্তাধারায় বদল আনা দরকার। কিন্তু একটা মানুষের পক্ষে সেটা অসম্ভব। তবে “I love the way I am” অর্থাৎ অভিনেত্রী নিজেকে নিজে যেমন তেমন ভালোবাসেন। তিনি স্পষ্টবাদী। তাই শ্রুতি বলেন,
কে কী বলল তাতে বিশেষ পরোয়া করেন না তিনি। সাদা পোশাক পরে শ্যামলা রঙের মেয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে বিন্দু মাত্র দ্বিধা নেই তাঁর।

বারবার কথার দ্বারা আক্রান্ত হতে হয়েছে শ্রুতিকে। কাজ নিয়েও নিজের সিদ্ধান্তে অটল শ্রুতি। যোগ্যতা দিয়েই অর্জন করবেন কাজ, বিশেষ বন্ধু স্বর্ণেন্দুর ধারাবাহিকেও কাজ করছেন না অভিনেত্রী। নিজের জীবন ও পরিবার নিয়ে বেশ কাটাচ্ছিলেন। সাধারণ মেয়েদের মতোই জীবন তার, একেবারে বাহুল্যবর্জিত। তবে, সুখবর অপেক্ষা করে আছে। দ্রুতই কাজে ফিরছেন শ্রুতি, তবে মাথা উঁচু করে।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর