fbpx

অভাবের সংসার! সিনেপাড়ায় সুযোগ না পেয়ে এক কালে দুয়ারে দুয়ারে ভজন গাইতেন নেহা কক্কর

অনীশ দে, কলকাতা: এই মুহূর্তে বলিউডের অন্যতম বিতর্কিত গায়িকা নেহা কক্কর (Neha Kakkar)। ক্যারিয়ারের শুরুতে ডান্স নাম্বারের জন্য নিজের নাম করলেও পরবর্তীকালে রিমেক গানের দিকেই বেশি ঝোঁক দেন তিনি। এক সময় রিয়ালিটি শোতে প্রতিযোগী হিসেবে অংশগ্রহণ করতে চাওয়া নেহা (Neha Kakkar) এখন সেই গানের অনুষ্ঠানেই বিচারকের আসন অলঙ্কৃত করেছেন। কিন্তু নেহার (Neha Kakkar) সাফল্যের পিছনে যে বন্ধুর পথ আছে, তা সম্পর্কে কি আমরা অবগত? মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান হয়ে বলিউডের এমন জায়গায় পৌঁছানো অতটাও সহজ ছিল না।

হৃষিকেশের এক জীর্ণ বাড়িতে থাকতেন নেহা। সেখানেই তার জন্ম। নেহা যখন ছোট তখনই বাবার কাজের সূত্রে দিল্লি চলে আসতে হয় তার পরিবারের। নেহার দুই ভাইবোন, সোনু কক্কর (Sonu Kakkar) এবং টনি কক্কর (Tony Kakkar)। শহরে এসে সোনু যে স্কুলে ভর্তি হয়, তার ঠিক সামনেই সিঙ্গারার দোকান ছিল নেহার বাবার। স্কুলের ঠিক সামনেই বাবার দোকান থাকায় অপমান করা হত সোনুকে যার জেরে পরবর্তীকালে স্কুল ছাড়তে বাধ্য হন তিনি। সংসারের একদিকে অভাব অন্যদিকে সমাজের না মেনে নেওয়াই হয়ে ওঠে নেহার শক্তি।

neha 2

দুবেলা দুমুঠো ভাতের জন্য বাড়িতে বাড়িতে ভজন গাইতেন তিনি। পারিশ্রমিক পেতেন মাত্র ১০০ টাকা। সোশ্যাল মিডিয়ায় পরবর্তীকালে তার বেশ কিছু ভজনের ভিডিও ভাইরাল হয়। এমনকি নেহার সাথে তার দুই ভাই বোনও পরবর্তীকালে এই উপায়ে টাকা উপার্জন করতেন। ২০০৪ সালে বাণিজ্য নগরীতে আসেন নেহা। এরপরে ইন্ডিয়ান আইডল- এর জন্য অডিশন দেন তিনি। যদিও সেইবার কপাল খারাপ থাকায় অডিশনে বাদ যান তিনি।

neha 3

প্রীতমের সুরে ককটেল ছবিতে একটি গান গেয়ে জনপ্রিয়তা পান নেহা। গানটির নাম সেকেন্ড হ্যান্ড জওয়ানি। যদিও এই গানের আগে অনেক কষ্ট পোহাতে হয় নেহাকে। ২০০৮ সালে মিট ব্রাদার্সের সাথে যৌথভাবে একটি অ্যালবাম প্রকাশ করেন নেহা, অ্যালবামের নাম নেহা দ্যা রকস্টার। কিন্তু অ্যালবামটি বাজারে মুখ থুবড়ে পড়ে। সেই সময় তামিল তেলেগু, কন্নড় ছবিতে কাজ করতে শুরু করেন নেহা। শেষ মেষ প্রীতমের সাথে দেখা হওয়ার পর ভাগ্য খুলে যায় নেহার।

neha 4

নেহার পাশাপাশি তার ভাই টনি কক্কর এবং বন সোনু কক্কর আজ বলিউডে প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন। টনি মূলত রিমেক গান বানান এবং তার বেশিরভাগ গানেই তিনি নিজের দিদিকে সুযোগ দিতে ভোলে না। অন্যদিকে সোনু কক্কর একাধিক ক্লাসিক্যাল ঘরানার গান উপহার দিয়েছেন আমাদের। এই মুহূর্তে নেহা প্রত্যেকটি গানের জন্য প্রায় ৮-১০ লক্ষ টাকা পারিশ্রমিক নেন। লাইভ শোয়ের জন্য নেন প্রায় ২০-২৫ লক্ষ টাকা। এই বছরই হৃষিকেশে একটি বাংলো কেনেন তিনি।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর