fbpx

একদিকে ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচান, আর অন্যদিকে নিজেদের পা ধরে টানাটানি, টলিউডের রাজনীতি নিয়ে সরব সুদীপ্তা

অনীশ দে, কলকাতা: অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুর পরে বিতর্ক বাসা বাঁধে টলিউডের ভিতর। মূলত ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে যে রাজনীতি চলে, তা অনেকেই জানিয়েছেন। বাইরের অনেক ছবি এসে রমরমিয়ে ব্যবসা করেছে বাংলায়। এমনকি প্রাইম টাইমে কোনো বাংলা ছবি না রাখায় হল মালিকদের সাথে আলোচনায় বসে সরকার। কিন্তু প্রশ্ন একটাই, বাংলা ছবির দর্শক দিন দিন কমছে কেন? এর জন্য একাধিক কলাকুশলী দায়ী করেছেন অন্দরের রাজনীতিকে। এছাড়াও দক্ষিণ ভারতের কাজের পদ্ধতি ও আমাদের পদ্ধতিতে রয়েছে বিরাট ফারাক (Sudipta Chakraborty exposed tollywood)।

sudipta 1

এখনও পর্যন্ত কেজিএফ চ্যাপ্টার ২ পশ্চিমবঙ্গে আয় করেছে ১৪.৯০ কোটি টাকা এবং এস এস রাজামৌলী পরিচালিত আর আর আর ব্যবসা করেছে ১২ কোটি টাকা। নেটিজেনদের প্রশ্ন, যদি দক্ষিণী ছবি পারে তবে আমরা কেনো পারবো না। এমনকি এই ঘটনার পর টলিউডের বড়ো বড়ো পরিচালক ও অভিনেতারা জন সাধারণকে অনুরোধ করেন বাংলা ছবি দেখার জন্য। এতে অবশ্য কোনো দোষ নেই। কিন্তু ইন্ডাস্ট্রির ভেতরের রাজনীতি নিয়ে এই প্রথম সরব হলেন সুদীপ্তা চক্রবর্তী (Sudipta Chakraborty)।

sudipta

অভিনেত্রী একটি ফেসবুক পোস্ট করেন যেখানে তিনি লেখেন, ” বাংলা ছবির পাশে দাঁড়ান” , “আমরা খুব কষ্ট করে সিনেমা টা বানিয়েছি, আপনারা দেখতে আসুন”,”বাংলা সিনেমা কে সাপোর্ট করুন”। এই কথাগুলো খুব শিশুসুলভ লাগে আজকাল। খালি মনে হয়, একজন গৃহবধূ বা রান্নার লোক বা রেস্টুরেন্টের cook যে রান্না টা করেন, সেটাও তাঁরা কষ্ট করেই করেন। তবু খেতে খারাপ হলে আমরা খাই না, reject করি, পয়সা দিয়ে খেলে দু কথা শুনিয়েও আসি, service ভাল না হলে সোশ্যাল মিডিয়া এ বদনাম করি, বন্ধু দের না খেতে/যেতে অনুরোধ করি।”

তিনি আরো জানান, ” তাহলে সিনেমাই বা বাদ যাবে কেন ? সিনেমা ভাল লাগলে লোকে দেখবে, না লাগলে দেখবে না। Simple!! নানা রকম খাবারের যেমন খরিদ্দার আছে, নানা রকম গান শোনার ও তেমন শ্রোতা আছে, নানা রকম সিনেমা দেখার ও দর্শক আছে। অন্যদের বলব “বাংলা ইন্ডাস্ট্রি কে বাঁচান”, আর ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে থেকে একে অন্যের পা ধরে টানবো, দুটো একসঙ্গে তো হয় না !!আমরা ছোট ছোট চেষ্টা গুলোকে appreciate করতে ভুলে যাচ্ছি। অপেক্ষাকৃত ছোট অভিনেতা/পরিচালক দের সোশ্যাল মিডিয়া এ ঠুকে ঠুকে পোস্ট করে সাময়িক বাহবা নিয়ে আনন্দ পাচ্ছি।”

আরও পড়ুন: তীব্র গরমে নাজেহাল অবস্থা, বৃষ্টি যেন অমাবস্যার চাঁদ ! একনজরে দেখে নিন আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস

ধারাবাহিক হোক কিংবা বড়ো পর্দা সুদীপ্তা প্রমাণ করেছেন তিনি সবেতেই সাবলীল। দীর্ঘদিন ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করলেও এখনও পাননি যথাযথ সম্মান। এই পোস্টে তিনি জানান প্রতিষ্ঠিত অভিনেতাদের প্রশংসা করে বা মন যুগিয়ে চললেই যে বাংলা ছবির মান আরও বাড়বে সেটা মনে করা ভুল। ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচিয়ে রাখার প্রসঙ্গে সুদীপ্তা বলেন, ” আমাদের বাঁচিয়ে রাখার দায় অন্য কারুর নেই, কোনদিন ছিল ও না। ওটা আমাদেরই দায়িত্ব।”

google-news-icon

লেটেস্ট খবর