Advertisement

Mithai:এখনও খাইয়ে দিতে হয় মিঠাইকে, সিধাই জুটির বাস্তব রসায়ন কেমন? অন্দরের গল্প ফাঁস করলেন ‛ঠাম্মি’

খুশির হাড়ি নিয়ে ফেরি করে যায়, বলো কে ? সে ‘মিঠাই’ ( Mithai ) । বাংলা ধারাবাহিকের জগতে বিপ্লব ঘটিয়েছে মিঠাই, অগনিত ভক্ত সংখ্যা নিয়ে বাংলা ধারাবাহিকে রাজ করছে মিঠাই। শুধু গল্পের জন্য নয়, ধারাবাহিকের প্রতিটি চরিত্র হয়ে গেছে দর্শকদের একেবারে ঘরের লোক। ধারাবাহিকের হিরো-হিরোইনের পাশাপাশি প্রত্যেকটি চরিত্রকে অসম্ভব ভালোবাসে মিঠাই প্রেমীরা। মনোহরা পরিবারকে একছাতার তলায় আগলে রেখেছেন দাদাই ও ঠাম্মি। দাদাইয়ের চরিত্রে অভিনয় করেন বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী আর ঠাম্মির চরিত্রে স্বাগতা বসু। আর তাদের নয়নের মনি হল সিদ্ধার্থ ওরফে আদৃত ও আদরের মিঠাই রানি ওরফে সৌমিতৃষা। বাস্তবে সৌমিতৃষা ( Soumitrisha Kundu ) আর ঠাম্মির ( Swagata Basu ) সম্পর্কের রসায়ণটা ঠিক কেমন? সেটাই জানালেন স্বাগতা বসু।

পর্দায় আটপৌরে সাজে মাথায় ঘোমটা দিয়ে পুজোর ঘরে কাটালেও বাস্তবে কিন্তু ঠাম্মি বেশ মর্ডান মানুষ। ওয়েস্টার্ন থেকে এথনিক নাতনিদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সাজেন তিনি। পর্দার ঠাম্মি বাস্তবে ‘স্বাগতা দি’। তবে পর্দার মিঠাই বাস্তবের সৌমিতৃষা কেমন? এব্যাপারে জানালেন স্বাগতা বসু। ঠাম্মি বললেন, বাস্তবে তিনি আর মিঠাই একেবারে বন্ধুর মতো। রুম শেয়ার থেকে ডিনারে যাওয়া। হই-হুল্লোড়, মজা, গান বাজনা করে কাটান তারা। তবে আদরের সম্পর্ক তো আছেই। মিঠাইয়ের সঙ্গে সিংহভাগ মিল সৌমিতৃষার। একেবারে মিঠাইয়ের মতো হাসি খুশি, দুষ্টু মিষ্টি মেয়ে। সারাদিন সেটে সে নানান মজার কান্ড করে মাতিয়ে রাখেন সৌমি। এরপর সৌমির মজার কিছু গুণ বললেন তিনি।
img 20220915 120838
স্বাগতা দেবী এক মজার কান্ড জানান, পাত পেড়ে ভাত-ডাল-মাছ এসব সৌমি একদম নিজে হাতে খেতে পারে না। সেটে এসব পেলে ছোটুছুটি করে বেড়ায়। এসময় যদি তাকে আদর করে মেখে খাওয়ানো হয় তবেই সে খায়। এমন সব কান্ড সৌমিতৃষা পর্দার বাইরে করে থাকে। এছাড়াও এমনিতে পর্দায় দক্ষতার সঙ্গে অভিনয় করলেও বাস্তবে একদম শিশুর মতো সরল। স্বাগতা বসু তাকে অভিনয় নিয়ে খুঁটিনাটি পরামর্শ তো দেনই, পাশাপাশি বকাঝকাও দেন আবার বন্ধুর মতো আড্ডাও দেন। সৌমিতৃষা ও আদৃত ( Adrit Roy ) দুজনেই বয়োঃজ্যেষ্ঠ স্বাগতা বসু ও বিশ্বনাথ বসুকে ভীষণ ভালোবাসে আর তেমন শ্রদ্ধা করেন।

এর আগেই দাদাই অর্থাৎ বিশ্বনাথ বসু আদৃতের ব্যাপারে দারুণ সার্টিফিকেট দিয়েছিলেন। আর এবার স্বাগতা বসু ঠাম্মি করলেন মিঠাইয়ের প্রশংসা। পর্দা ও তার বাইরে এই দুই বিখ্যাত অভিনেতা অভিনেত্রী যে কতটা ছেলে মানুষ ও ভালো মনের মানুষ। মানুষের ভালোবাসা তাই পুষ্প বৃষ্টির মতো ঝড়ে পরে মিঠাই পরিবারের ওপর। আজও তাই টি আর পি তালিকার শীর্ষে না থাকলেও মানুষের মনে চিরকালীন ‘মিঠাই’।



Follow us on


Advertisement
Back to top button
Advertisement
Advertisement