fbpx

ধীরে ধীরে বেরোচ্ছে দাঁত-নখ! দিল্লিবাসী এই আফগান মহিলার উপর মৃত্যু পরোয়ানা জারি তালিবদের

ভালো নেই পৃথিবী। বেজে গিয়েছে যুদ্ধের দামামা। ১৫ ই অগাস্ট যখন ভারতে (India) স্বাধীনতা দিবস উদযাপন হচ্ছে, তখন প্রতিবেশী দেশ আফগানিস্তানের (Afghanistan) দখল নিয়েছে তালিবানরা (Taliban)। দুর্ধর্ষ গোষ্ঠী তালিবানদের অত্যাচারে ঘুম উড়েছে আফগানবাসীর৷ ঘর পোড়া গরু  যেমন সিঁদূরে মেঘ দেখলে শিউরে ওঠে, তেমনই তালিবানদের শাসনে নারী স্বাধীনতা শব্দটি যে আফগানিস্তানের ইতিহাস থেকে মুছেই যাবে সে আশঙ্কা তো ছিলোই, এবার তা সত্যিও হল।

জন্মসূত্রে আফগানিস্তানের বাসিন্দা এক মহিলা বর্তমানে ভারতে বাস করেন, এবার তার বিরুদ্ধেই মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছে তালিবানেরা। তালিবানেদের অভিযোগ ওই মহিলা অবৈধ ভাবে, কোনো অকাট্য কোনও কারণ ছাড়াই ডিভোর্স দিয়েছেন তার স্বামীকে। আজ থেকে বছর চারেক আগেই অশান্ত আফগানিস্তান ছেড়ে শান্তি খুঁজতে ভারতে চলে এসেছিলেন তিনি। কিন্তু তবুও হল না শেষ রক্ষা। তার উপর এখন জারি মৃত্যু পরোয়ানা।

taliban

জানা যাচ্ছে, বছর চারেক আগে হায়াত নামের ওই মহিলা শুরুতে আর পাঁচ জন গৃহিণীর মতোই গুছিয়ে করছিলেন। স্বামী এবং চার সন্তানকে নিয়ে ভরা সংসার ছিল তার৷ কিন্তু হঠাৎই তিনি জানতে পারেন, তার স্বামী একজন স্বক্রিয় তালিবান সদস্য৷ একথা শোনা মাত্রই ভয়ে কাঁটা হয়ে যান মহিলা। ভালোবাসার মানুষটি যে আসলে এক দুর্ধর্ষ যুদ্ধে নেমেছেন একথা জানতে পেরেই স্বামীকে ডিভোর্স দিয়েছিলেন হায়াত।

তারপর বছর চারেক সবকিছু বেশ শান্তিপূর্ণ ভাবেই চলছিল। কিন্তু আফগানিস্তানে ফের তালিবানেদের দাপাদাপি শুরু হতেই তল্লাসী শুরু হয়েছে হায়াতের। তালিবানেরা ছেড়ে কথা বলবেন না তাকে৷ তিনি তখনই জানতেন এই বিচ্ছেদের ফল তাকে ভুগতেই হবে, তাই সেইসময় ২ কন্যা সন্তানকে নিয়ে প্রাণ হাতে করেই ভারতে উড়ে এসেছিলেন তিনি। এদেশে এসে জিম ট্রেনার হিসেবে কাজ শুরু করেই ধীরে ধীরে সন্তানদের মানুষ করছিলেন তিনি।

আফগানিস্তান,তালিবান,ডিভোর্স,মৃত্যু পরোয়ানা,হায়াত,ভারত,india,divorce,death warrant,Afghanistan,Hayat,মৃত্যু পরোয়ানা জারি,আফগানিস্তানে তালিবান শাসন,নারী স্বাধীনতা,Afghanistan woman,woman independence,Taliban terrorism

সেই সময় দুই সন্তানকে উদ্ধার করতে পারলেও আর দুই মেয়েকে আফগানিস্তানেই ‘বাবা’র কাছে ফেলে আসতে হয়েছিল। পরে জানা যায় নিজের সন্তানকেও তালিবানেদের হাতে বেচে দিয়েছিলেন হায়াতের স্বামী৷ এহেন পরিস্থিতিতে ঘুম উড়েছে হায়াতের। তিনি জানেন তার তল্লাসী চালাচ্ছেন তালিবানেরা। আফগানিস্তান ফিরলেই তার মৃত্যু আবশ্যিক এবং দুই মেয়েকেও বেচে দিতে তার প্রাক্তন স্বামী দুদন্ড ভাববেন না। অর্থাৎ গোটা ঘটনা থেকেই বোঝা যাচ্ছে বর্তমানে আফগানিস্তানে নারী স্বাধীনতা আসলে সোনার পাথর বাটি। এই ঝড় থেমে পৃথিবী যে কবে শান্ত হবে তার আশাতেই তাকিয়ে হায়াতের মতো অসংখ্য আফগানবাসী৷

google-news-icon

লেটেস্ট খবর