fbpx

Horoscope Today: রান্নাঘরে এই উপকরণটি কিনে এনেছেন! শিগগিরই না সরালে আপনার জন্য অপেক্ষা করছে বিপদ

মন্টি শীল, কলকাতা: শাস্ত্র অনুযায়ী, হিন্দুদের দেব-দেবীর সংখ্যা প্রায় ১৩৩ কোটি। আর এই প্রত্যেক দেব-দেবীর রয়েছে পুজো করার বিভিন্ন রকমের পদ্ধতি, রয়েছে বিভিন্ন তিথির উল্লেখ। কিন্তু জানেন কি, যদি এই সকল দেবতাদের আরাধনা করার সময় আপনার অজান্তেই কোনও ভুল ত্রুটি ঘটে যায় অথবা এই বিভিন্ন রকমের পদ্ধতির অথবা তিথির সঠিক ব্যবহার না করেন তবে আপনার প্রতি দেবতারা রুষ্ট হতে পারেন। এমনকী জীবনে দেখা দিতে পারে আর্থিক সংকট সহ একাধিক সমস্যা।

বিশেষত, শনি দেব যদি আপনার উপর রুষ্ট হন তবে আপনার জীবনে অশুভ সময়ের সূচনা ঘটছে বলে ধরে নেওয়া হয়। তবে এই অশুভ প্রভাব থেকেও মুক্তি পাওয়ারও কিছু পদ্ধতি রয়েছে। শাস্ত্র অনুযায়ী বলা হয়েছে, একজন জাতক বা জাতিকা নজরে অজ্ঞাতবাসে এমন কিছু কাজ করে বসেন যার দরুন দেবতারা ক্ষুদ্ধ হন। আর এর থেকে মুক্তি পাওয়ার প্রথম উপায় নিজ চালচলন জীবন যাত্রায় পরিবর্তন নিয়ে আসা। শাস্ত্রের মতানুসারে বলা হয়েছে, মানব জীবনের কিছু ছোট খাটো বিষয়ের দরুন ক্ষুদ্ধ হন শনি দেবতা এবং জীবনে ডেকে নিয়ে আসেন বিপদ।

21c12

তবে এই বিপদ থেকে মুক্তি পেতে হলে, শনিবার করে সরষের তেল অথবা কালো তিল জাতীয় জিনিস নিয়ে সংসারে প্রবেশ করবেন না। কিন্তু আপনি হয়তো ভাবছেন, সরষের তেল তো রান্না ঘরের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস। তা ফুরিয়ে গেলেই তৎক্ষনাত দোকানের সামনে গিয়ে দাঁড়াতে হয়। প্রায় প্রতিটি রান্নার পদের এর ব্যবহার করা হয়। তাহলে কেন হঠাৎ এই বিধি। শাস্ত্র মতে বলা হয়েছে, শনি দেবতার নজর দোষ কাঁটাতে সরষের তেল ব্যবহার করা হয়। যার জন্য এক বিশেষ টোটকা প্রচলিত আছে।

21c13

এমনকী শাস্ত্র অনুযায়ী বলা হয়েছে, যদি আপনি আপনার জীবন থেকে শনির দোষ কাঁটাতে চান তাহলে অবশ্যই প্রতি শনিবার করে মাথায় সরষের তেল মাখতে পারেন। খুব শীঘ্রই সুফল পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও শনি দোষ কাঁটানোর একাধিক পদ্ধতি রয়েছে, যেমন- প্রতি শনিবার নিয়ম করে কুকুরকে সরষের তেল তেল দিয়ে তৈরি করা পুডিং, অথবা শনি দেবতাকে প্রতি শনিবার করে কালো তিল দান করলে আপনার বিপদ কেটে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। শাস্ত্র অনুযায়ী, শনি দেবতা ক্ষুদ্ধ হলে মানব জীবনে অশুভ শক্তির কালো ছায়া নেমে আসে। তাই যতটা সম্ভব এই দেবতাকে সন্তুষ্ট রেখে এই সহজ উপায় গুলি অবলম্বন করলেই জীবনে সুখ স্বাচ্ছন্দ্য বজায় থাকবে।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর