fbpx

Horoscope Today: চান অক্ষয়-টুইঙ্কেলের মতো সুখী সম্পর্ক? কন্যা-মকরের মেলবন্ধনই দিতে পারে সুখময় দাম্পত্য জীবন

মন্টি শীল, কলকাতা: সচরাচর দেখা যায়, প্রত্যেকটি বৈবাহিক সম্পর্কের মধ্যে ছোট খাটো বিষয় নিয়ে ত্রুটি ক্রমবর্তমান থাকে। কিন্তু সমস্ত ত্রুটিকে চাপা দিয়ে এক সুন্দর এবং বিশ্বাসে পরিপূর্ণ দীর্ঘস্থায়ী সম্পর্কে পূর্ন করতে পারে একমাত্র একে অপরের প্রতি ভালোবাসা, শ্রদ্ধা। উদাহরণ স্বরূপ বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমার এবং অভিনেত্রী টুইঙ্কেল খান্নার দাম্পত্য জীবনের কথা তুলে ধরলে ভুল কিছু হবে না।

শাস্ত্র অনুযায়ী, অক্ষয় কুমার কন্যা রাশি অন্তর্গত এবং অভিনেত্রী টুইঙ্কেল খান্না মকর রাশির অন্তর্ভুক্ত। তাই এরা পৃথিবী তত্বের জাতক। এরা নিজের সম্পর্কের জন্য বাস্তববাদী এবং সংগঠিত দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করে থাকেন। এরা দুজনেই অত্যন্ত রোমান্টিক, এক অপরের প্রয়োজনীয়তা পূরণ করতে সক্ষম তাই এই জাতকদের সম্পর্ক চিরস্থায়ী হয়। তবে এই কন্যা এবং মকর রাশির জাতকরা বিবাহের জন্য ঠিক কতটা উপযুক্ত একনজরে দেখনিন।

19c12

• যুক্তিবাদী এবং পরিপক্ক
যে কোনও সম্পর্ক চিরস্থায়ী করতে হলে পারস্পরিক বোঝাপড়া এবং পরিপক্কতা থাকা অত্যন্ত জরুরী। আর এই তথ্য এই দুই রাশির ক্ষেত্রে অত্যন্ত জরুরী। শাস্ত্র অনুযায়ী, মকর এবং কন্যা রাশি জাতকরা তাঁদের সম্পর্কের প্রতি ভীষণ যত্নশীল ও পরিশ্রমী হন। এর সারাদিন নিজের ভালোবাসার মানুষটির চারপাশে আবর্তিত থেকে তাকে প্রয়োজনীয় সময় দিতে পারেন। এরা নিজ নিজ আত্মীয়তা এবং পারস্পরিক মেল বন্ধনে আবদ্ধ থাকতে পছন্দ করেন। শুধু তাই নয়, এদের সম্পর্কে কোনও রকমের ছোট খাটো সমস্যা দেখা দিলে তা যুক্তি সহকারে মিটিয়ে নিতে সমর্থ হন।

19c13

• সমর্থন এবং উৎসাহে উন্নতি
প্রেম অথবা ভালোবাসার প্রসঙ্গ উপস্থাপিত হলে কন্যা এবং মকর রাশির জাতকরা অত্যন্ত যত্ন এবং সাবধানতার সঙ্গে প্রতিটি পদে জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করে থাকেন। শুধু তাই নয়, এরা পরস্পরের আবেগ এবং অনুভূতিকে যথেষ্ট সম্মান প্রদর্শন করে থাকেন। যার দরুন এদের সম্পর্ক এক ভিন্ন মাত্রায় গিয়ে পৌছায়। এরা জীবনে চলার পথে কোনও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত অথবা প্রচেষ্টাকে সমর্থন জানিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে সহায়তা করেন। যার দরুন এই জাতকদের মধ্যে কলহ সৃষ্টি হলেও তা ক্ষণস্থায়ী হয়।

• আবেগ-অনুভূতি
এই দুই রাশি অন্তর্গত জাতকদের জীবনে আবেগ এবং অনুভূতির সাদৃশ্য লক্ষ্য করা যায়। শাস্ত্র অনুযায়ী, এরা নিজ কাজ এবং দায়িত্ব পূরণ করার মধ্যে সীমাবদ্ধতা বজায় রাখেন। এরা সময় নিয়ে নিজের মনে আবেগ-অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ করে থাকেন। যার দরুন এরা বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে ভবিষ্যতে গুরুত্বর সিদ্ধান্তু গ্রহন করতে সক্ষম হন। তাই এই জাতকদের সম্পর্কে আবেগপ্রবণতা লক্ষ্য করা যায় না।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর