fbpx

পিছিয়ে নেই বাঙালি! বিদেশের মাটিতে ‘বাংলার গর্ব’ সম্মানে ভূষিত কাটোয়ার তুষার পন্ডিত

জয়িতা চৌধুরি,কলকাতাঃ নয়া পালক বাংলার মুকুটে! আরও একবার বিশ্বের দরবারে সন্মানিত হল পশ্চিম বাংলা। লন্ডনের ‘অ্যাডভাটেক ফাউন্ডেশন’ আয়োজিত ‘বাংলার সংস্কৃতি’ ( Banglar Sanksriti ) উৎসবে ‘বাংলার গর্ব’ ( Banglar Gorbo, 2022 ) সন্মানে ভূষিত হচ্ছেন সাহিত্য ও সংস্কৃতির গবেষক তুষার পণ্ডিত ( Tushar Pandit )। সূত্রের খবর, কাটোয়ার মাধবীতলার বাসিন্দা তুষার পণ্ডিত ২০ জুলাই লন্ডনের হাউস অফ কমনসের চার্চিল হলে এই সম্মানে ভূষিত হতে চলেছেন৷

ইতিমধ্যেই অনুষ্ঠানটির আয়োজক সংস্থার তরফে চেয়ারপার্সন আন্না ফার্থের আমন্ত্রণপত্রও পৌঁছে গিয়েছে তুষারের বাড়িতে। সন্মান পেয়ে কেমন লাগছে তাঁর? একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তুষার জানিয়েছেন এই সম্মান পেয়ে গর্ববোধ করছেন তিনি৷ তাঁর সঙ্গে তিনি জানান আয়োজক সংস্থার তরফে তাঁকে যে চিঠি পাঠানো হয়েছে, তাতে লেখা আছে বাংলা ও বাঙালির সাহিত্য এবং সংস্কৃতির নানা দিককে বৃহত্তর পরিসরে পৌঁছে দেওয়ার কাজে নিরলস ব্যক্তিদের ‘বেঙ্গল প্রাইড অ্যাওয়ার্ড’-এ ভূষিত করা হবে৷

অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন লর্ডস, ব্যারন, শিল্পপতি, সাংসদ, উচ্চপদস্থ ব্যক্তি সহ মোট ১২০ জন। তুষার পণ্ডিতের তেভাগা আন্দোলনের ( Tebhaga movement ) সাহিত্য বিষয়ক গবেষণাগ্রন্থটি সেই আন্দোলনের ক্ষেত্রে নতুন দিশা দেখিয়েছেন। এছারাও সাহিত্যিক তুষার পণ্ডিত পশ্চিমবঙ্গের ( West Bengal ) বিভিন্ন শীর্ষস্থানীয় সাহিত্যপত্রে নিয়মিত সাহিত্য বিষয়ক প্রবন্ধ লেখেন। পাশাপাশি তিনি কাটোয়া রবীন্দ্র পরিষদ ( Katoya Rabindra Parishad ) এবং বইমেলা কমিটির সম্পাদক।

লেখালিখি ছাড়াও সাহিত্য ও সংস্কৃতির গবেষক তুষার পণ্ডিতের রয়েছে একাধিক পরিচয়। রবীন্দ্রচেতনা থেকে সুস্থ সংস্কৃতির প্রসার প্রভৃতির জন্য বেশ পরিচিত মুখ তিনি। দীর্ঘদিন ধরেই বাংলা ভাষার প্রচার ও প্রসার আন্দোলনের সাথে সরাসরি ভাবে যুক্ত রয়েছেন তিনি। বিশ্বের দরবারে ‘বাংলার গর্ব’ সন্মানে পাওয়ার জন্য খুশি তাঁর বন্ধুবান্ধব ও আত্মীয় পরিজনেরা। খুশি গবেষক নিজেও। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এই সম্মান অত্যন্ত গর্বের’।

 

google-news-icon

লেটেস্ট খবর