Advertisement

Lilua Toto driver: প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিলেই মুকুব ভাড়া, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল লিলুয়ার টোটো চালক

অরুণিমা সরকার, কলকাতাঃ একজায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাচ্ছেন। টোটোয় (Toto) উঠেছেন, ভাড়া দিয়ে নেমে যাবেন। এটাই তো স্বাভাবিক! কিন্তু যদি ভাড়া (fair) না দিতে হয়। শর্ত একটাই, দিতে হবে প্রশ্নের সঠিক উত্তর (question answer game)। কুইজের (Quiz) সঠিক উত্তর দিন, আর ভাড়া মকুব! বহু দিন আগে কোনো এক গুণীজন বলে গিয়েছিলেন- ভারতের নানা আনাচেকানাচে ছড়িয়ে রয়েছে বহু আশ্চর্য জিনিস। এর আগেও এরকম বহু আশ্চর্য জিনিসের উদাহরণ আমরা পেয়েছি। বেশ কিছুদিন আগেই ইন্টারনেটের দৌলতে ভাইরাল হয়েছিলেন একজন কম্পিউটার সায়েন্স গ্রাজুয়েট (Computer Science Graduate), বারাণসীর রাস্তায় ভিক্ষা করতে দেখা যায় তাকে। এছাড়াও কলকাতার রাস্তায় সেই বৃদ্ধ বেহালাবাদক, যাকে কলকাতা পুলিশ আর্থিক ভাবে সাহায্য করেছিলো। এবার এই দলে নাম লেখালেন লিলুয়ার এক টোটোচালক, তার অবশ্য কোনো রকম আর্থিক সাহায্য প্রয়োজন হয়নি।

আরও পড়ুন – আগে পরীক্ষা পরে বিয়ে, গুজরাটে কনের সাজে পরীক্ষাহলে জাহির ছাত্রী

সংকলন সরকার নামে এক ব্যক্তি ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন এবং তাতে তিনি লেখেন “লিলুয়ার (Howrah Liluah) এক আকর্ষণীয় ব্যক্তির সঙ্গে সাক্ষাৎ হল। আমরা সেই ব্যক্তির টোটোয় রঙ্গোলি মলে যাচ্ছিলাম। সেইসময় হঠাৎ তিনি আমাদের দিকে ঘুরে বললেন, আমরা যদি তার ১৫টি প্রশ্নের উত্তর দিতে পারি তাহলে তিনি ভাড়া নেবেন না”। টোটোচালকের এহেন বক্তব্যে বেশ অবাকই হয়েছিলেন সেই সংকলন সরকার এবং তার স্ত্রী।এরপর টোটোওয়ালা যাত্রী এবং তার স্ত্রীকে একের পর এক প্রশ্ন করতে থাকেন, যা খানিকটা এরকম- জন গণ মন অধিনায়কের রচয়িতা কে? প্রথম টেস্টটিউব বেবির নাম কী? ইত্যাদি…  তার এই প্রশ্ন তালিকা থেকে বাদ যায়নি শ্রীদেবীর জন্ম তারিখ কিংবা পশ্চিমবঙ্গের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী কে? ইত্যাদির মতো প্রশ্নও। টোটো চালকের প্রশ্নত্তোর পর্ব সেই হলে, সংকলন সরকারও টোটো চালককে বেশ কিছু প্রশ্ন করেন, যার নির্ভুল উত্তর দিয়ে তাক  লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন – জুকারবার্গ থেকে আম্বানি, জেনে নিন এবছরের সেরা দশ ধনকুবেরের নাম

বেশ খানিক্ষণ প্রশ্নোত্তর পর্ব চলার পর ওই টোটোচালক জানান যে অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়াকালীন তিনি স্কুল ছেড়ে দিতে বাধ্য হলেও পড়াশোনা বা শিক্ষাগ্রহণ কখনওই বন্ধ করেননি। প্রথাগত শিক্ষা না থেকেও তিনি  আজ যা করে চলেছেন তা আজ দৃষ্টান্তমূলক। তার কথায়- “আমি প্রতিদিন রাত ২টা পর্যন্ত এই জিনিসগুলো পড়ি। আমিও লিলুয়া বইমেলা ফাউন্ডেশনের একজন সদস্য”। তিনি একথাও জানান যে, তাকে ‘অদ্ভুত টোটোওয়ালা’ নামে গুগলেও পাওয়া যাবে। সংকলন সরকার এই ঘটনাটি স্যোশাল মিডিয়ায় পোস্ট হওয়া মাত্রই তা দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়েছে এবং নেটিজেনদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন।



Follow us on


Advertisement
Back to top button
Advertisement
Advertisement