fbpx

Nabanna Abhijan: কারও দলের প্রয়োজন নেই, কেউ মামলায় আটকে! বিজেপির নবান্ন অভিযানে ‘গরহাজির’ যে টলি অভিনেত্রীরা

সাঁতরাগাছি টু হাওড়া বিজেপির অভিযানে দেখা মিলল না প্রথম সারির সাংসদ অভিনেত্রীদের!

জয়ীতা সাহা, কলকাতা: একদিকে যখন বিজেপির নবান্ন অভিযানে উত্তাল বঙ্গ রাজনীতি। তখন উল্টো দিকের চিত্রটা একটু আলাদা। সাঁতরাগাছি থেকে হাওড়ার ময়দান উত্তাল পরিস্থিতির কোথাও দেখতে পাওয়া গেল না বিজেপির প্রথম সারির সাংসদ তথা টলিপাড়ার অভিনেতা অভিনেত্রীদের। ক্যামেরায় ধরা না পড়লেও কারও কারও দাবী তাঁরা ছিলেন। কেন তাঁদের দেখতে পাওয়া গেল না এই অভিযানে? বিধানসভা ভোটের আগে যাঁদের একেবারে প্রথম সারিতেই দেখা মিলেছিল। দলের সঙ্গে সুর চড়িয়ে হাতে তুলে নিয়েছিলেন বিজেপির পতাকা আজ তাঁরা কেন অন্দরমহলে? উত্তাল অভিযানের পর এমনই সব প্রশ্ন উঠে আসছে অনুগামী তথা জনসাধারণের মধ্যে।

বিধানসভা ভোটের আগে বেশ জোর কদমে ভোটের প্রচার থেকে শুরু করে দলীয় কাজে দেখা মিলেছিল বেশ কিছু টলি তারকার। এঁদের মধ্যে ছিলেন যশ দাশগুপ্ত, রূপাঞ্জনা মিত্র, অঞ্জনা বসু, কাঞ্চনা মৈত্র, পার্নো মিত্র সহ অনেকেই। রুদ্রনীল ঘোষকে ক্যামেরায় না দেখা গেলেও তিনি ওই অভিযানে ছিলেন বলে দাবি করেছেন বিজেপির একাধিক সাংসদরা। কলেজ স্ট্রিটের মিছিলে বিজেপীর প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি-র সঙ্গে ছিলেন রুদ্রনীল এমনটাই জানিয়েছেন অগ্নিমিত্রা।

screenshot 2022 09 14 14 07 36 45

তবে বাকিরা তাঁদের কেন দেখা গেল না এই অভিযানে? এই প্রশ্নের জবাবে সংবাদমাধ্যমকে অভিনেত্রী তথা বিজেপি সাংসদ কাঞ্চনা মৈত্র জানিয়েছেন, “আমি গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে সক্রিয় ভাবেই যুক্ত। আমি জামিনে রয়েছি। আমার নামে ১৬টি ক্রিমিনাল কেস রয়েছে। প্রতি সপ্তাহে এক বার ব্যাঙ্কশাল কোর্ট আর এক বার জোড়াসাঁকো থানায় হাজিরা দিতে হয়। মঙ্গলবার আমার আগে থেকেই শ্যুটিংয়ের ডেট দেওয়া ছিল।”

img 20220914 141216এ প্রসঙ্গে অভিনেত্রী তথা বিজেপি সাংসদ রূপাঞ্জনা মিত্র-র বক্তব্য, “দলে থাকতেই দলের কিছু কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলাম। সুতরাং, মানুষের পাশে থাকার জন্য আমার কোনও দলের প্রয়োজন নেই।” অর্থাৎ বিজেপির এই অভিযানে অভিনেতা অভিনেত্রীদের বেশিরভাগ অংশই নেই তাই বলাবাহুল্য। অপরদিকে এ বিষয়ে অঞ্জনা বসু-র জানিয়েছেন, গত এক মাস ধরে অসুস্থ তিনি। একটি বড় অস্ত্রোপচার হয়েছে তাঁর। তাই তিনি এই আন্দোলনে অংশ নিতে পারেননি। অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত, শ্রাবন্তী চ্যাটার্জী ভোটে হেরে যাওয়ার পর থেকে তাঁদের দেখা মেলেনি এই রাজ্য রাজনীতিতে । বিজেপি-তে যোগ দিয়েছিলেন রূপা গঙ্গোপাধ্যায়। বিধানসভা ভোটে বিজেপির টিকিটে লড়ে হেরে যান তিনি। তবে বিজেপি তাঁকে রাজ্যসভার সাংসদ করেছিল। আন্দোলনে রূপা গঙ্গাপাধ্যায়ের ছবি দেখা না গেলেও পরে দলীয় সমর্থকরা তাঁর অভিযানে যোগ দেওয়ার ছবি নেটমাধ্যমে প্রকাশ করেন।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর