fbpx

একঘেয়ে ‘মাসালা’ ছবিই করতে চান জিৎ! অন্য ধারার ছবি না করার কারণ কি? নিজেই জানালেন অভিনেতা

অনীশ দে, কলকাতা: কয়েক বছর আগে পর্যন্ত মূলত ২ ধরনের বাংলা ছবি আমরা দেখতে পেতাম। একদিকে সিঙ্গেল স্ক্রীন দর্শকদের জন্য তৈরি হতো মাসালা সিনেমা এবং অন্যদিকে মাল্টিপ্লেক্সের দর্শকদের কথা মাথায় রেখে তৈরি হতো ভালো কনটেন্টের ছবি। কিন্তু ২০১১তে অটোগ্রাফ মুক্তি পাওয়ার পরে এই সমীকরণ ধীরে ধীরে বদলাতে শুরু করে। ঋতুপর্ণ ঘোষের পরিপন্থী সৃজিত মুখোপাধ্যায় সহ নানান নবাগত পরিচালকেরা নতুন স্বাদের ছবি উপহার দেন বাংলার এলিট দর্শকদের (Jeet about mainstream movie)। প্রথমদিকে এই ধরনের ছবিতে আগ্রহী ছিলেন না সুপারস্টাররা।

মূলত দক্ষিণী ছবির রিমেকের উপরেই দাড়িয়ে ছিলো কমার্শিয়াল ছবির বাজার। কিন্তু ভারতবর্ষে 4G আগমনের পরে এই রিমেকের বাজার সম্পূর্ণ ভাবে ধসে যায়। প্রথমদিকে টিভিতে এবং পরবর্তীতে সোশ্যাল মিডিয়াতে দক্ষিণী ছবির হিন্দি ডাব ভার্সন হয়ে ওঠে জনপ্রিয়। এরপরেই শুরু হয় সমস্যা। হিন্দি ডাব হওয়া দক্ষিণী ছবি দেখতে কোনো দর্শকই হলমুখী হতে চান না। দেব, অঙ্কুশের মত তাবড় স্টারেরা পাতি কমার্শিয়াল ছবি থেকে নিজেদের বিরত রাখেন।

jeet 3

এমনকি দেব নিজের একটি প্রোডাকশন হাউস শুরু করে। কিন্তু জিৎ (Jeet)- এর ছবিতে সেরকম কোনো পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায় না। সেই একই ধাঁচের গদবাধা রোমান্স, ড্রামা, কমেডি, অ্যাকশন জেনরের মধ্যে ঘুরপাক খেতে থাকে তার সমস্ত ছবি। কিন্তু জিতের (Jeet) কমার্শিয়াল ছবি ছাড়া অন্য ধরনের ছবির প্রতি এত বৃতিষ্ণা কেন? কেনই বা গদবাধা ছক ভাঙতে নারাজ তিনি (Jeet about mainstream movie)?

jeet 2

কিন্তু সত্যিই কি তাই। কারণ অনেকেই জানেন ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে জিৎ কৃষ্ণকান্তের উইল ছবিটি করেন। যে ছবিটি কোনদিক থেকেই কমার্শিয়াল নয় বরং একটি আর্ট ফিল্ম। অন্যদিকে ২০২০ সালে মুক্তি পায় অসুর, পাভেলের পরিচালনায় তৈরি এই ছবিতে সম্পূর্ণ ভিন্ন রূপে আত্মপ্রকাশ করেন জিৎ, যা দেখে সবাই অবাক হয়ে যায়। কিন্তু এই ধরনের ছবি বেশি না করার করন কি? সম্প্রতি একটি সাক্ষৎকারে জিৎ (Jeet) নিজেই এইসমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন। জিৎ জানান যে তার যে ধরনের দর্শক রয়েছে সেখানে দাঁড়িয়ে তিনি বেশি পরিমাণে মেইনস্ট্রিম ছবি করতে চান।
আরও পড়ুন:‘কৃষ্ণকলি’ শেষ হয়েছে অনেক আগেই, কি করছেন শ্যামা অভিনেত্রী তিয়াশা, রইল তারই এক ঝলক
কারণ সাধারন দর্শকরা লার্জার দ্যান লাইফ অভিজ্ঞতার জন্যই হলমুখী হন। তা ছাড়াও তার একটি পারিবারিক দর্শক রয়েছে। তাই অসুর (Asur) একটি ভালো ছবি হলেও, ফ্যামিলি ফিল্ম না হওয়ায় সেই ছবির দর্শক সংখ্যা ছিল কম। তাই তিনি চান দক্ষিণী ছবির মত ছবি বানাতে। যেখানে অ্যাকশন, কমেডি, ড্রামা থাকবে সাথে থাকবে ভালো গল্প যা আট থেকে আশি সবার পছন্দ হবে। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে জিতের রাবণ। এই ছবি পুরোপুরি মেইনস্ট্রিম হলেও দর্শক এই ছবি দেখতে হলমুখী হচ্ছেন যা আবার প্রমাণ করল সবার উপর গল্প সত্য তাহার উপর কেহ নয়।

google-news-icon

লেটেস্ট খবর